তেলাপিয়া মাছের ক্ষতিকর কিছু দিক জেনে নিন

0
807
তেলাপিয়া মাছ

প্রায় সবক্ষেত্রেই এখন চলছে ভেজালের প্রতিযোগিতা! প্রাত্যাহিক জীবনের প্রায় সবক্ষেত্রেই ভেজালের ভয়ানক উপস্থিতি প্রকট আকার ধারন করেছে । মানুষে ভেজাল, প্রেম-ভালোবাসায় ভেজাল, আচার-আচরনে ভেজাল, আইন-কানুন ভেজাল, ভেজাল রাজনীতি, অর্থনীতি, সমাজনীতি। ভেজালে ভরা নৈতিক মূল্যবোধ, শিক্ষা-সংস্কৃতি,রীতিনীতি । ভেজালেই ভরা পারস্পরিক সৌহার্দ, সামাজিক দায়বোধ এমনকি পারিবারিক দায়বোধেই ভেজাল! উপরোল্লিখিত অনেক বিষয়ের ভেজালগুলো কিছু কিছু ক্ষেত্রে হয়ত এড়িয়ে অথবা গা বাঁচিয়ে কোনমতে চলতে পারতো মানুষ, কিন্তু যখন নিত্যপ্রয়োজনীয় খাবার যা খেয়ে অন্তত কোনমতে বেঁচে থাকতে পারে সাধারন মানুষ সেখানেও যখন ভেজালের অস্তিত্ব ভয়ানক প্রবল তখন কোথায় যাবে মানুষ, বাঁচবেই বা কিভাবে ? –
এবার এতকাল নিরীহ হিসেবে পরিচিত তেলাপিয়ার বিরুদ্ধেই উঠেছে স্বাস্থ্য ঝুকির সতর্কবার্তা । সারাদেশেই সমান ভাবে সমাদৃত এই মাছ । স্বাদ ও সাধ্যের মধ্যে দাম থাকার দরুন এগুলোর বেশির ভাগই চাষ হয় আমাদের দেশেই ।

তবে এসব তেলাপিয়ায় মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে খাদ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ‘ইটলোকালগ্রোন’। প্রতিবেদনটিতে তেলাপিয়া খাওয়ার সম্ভাব্য ভয়াবহ কিছু দিক তুলে ধরা হয়েছে।
ক্যান্সার সৃষ্টিকারী পদার্থ
প্রাকৃতিক জলাশয়ের মাছের চেয়ে চাষ করা মাছে ১০ গুণ বেশি ক্যান্সার সৃষ্টিকারী দূষিত পদার্থ থাকে। মূলত চাষ করা মাছের খাবারে এসব পদার্থ থাকে। চাষ করা তেলাপিয়ায় এসব উপাদান থাকতে পারে। তাই এগুলো খাওয়া ক্যান্সারের ঝুঁকি তৈরি করতে পারে।
শরীরে প্রদাহ তৈরি
সাম্প্রতিক কিছু গবেষণায় পাওয়া যায়, চাষ করা তেলাপিয়ায় শরীরে প্রদাহ তৈরি হতে পারে। এসব প্রদাহের ফলে হৃদযন্ত্রের বিভিন্ন রোগ, আর্থাইটিস, অ্যাজমা হতে পারে। গবেষণায় এ-ও দেখা গেছে, হ্যামবার্গার খেয়ে শরীরে যে প্রদাহ তৈরি হয়, তার চেয়ে বেশি হতে পারে তেলাপিয়া খেলে।
কীটনাশক ও অ্যান্টিবায়োটিক
একটি জলাশয়ে তেলাপিয়ার মতো মাছগুলো বিপুল পরিমাণে মাছ চাষ করা হয়। এসব মাছ রোগপ্রবণ। তাই এগুলোকে জিইয়ে রাখতে অ্যান্টিবায়োটিক ও কীটনাশক ব্যবহার করা হয়। এ জাতীয় মাছ খেলে এ ক্ষতিকর উপাদানগুলো মানবদেহে প্রবেশ করতে পারে। এ থেকে হতে পারে প্রাণঘাতী রোগ।
ডায়োক্সিনের ক্ষতিকর উপস্থিতি
চাষ করা তেলাপিয়ায় বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ ডায়োক্সিন থাকতে পারে। এ ডায়োক্সিন মানবশরীরে দীর্ঘদিন পর্যন্ত চক্রাকারে ক্রিয়া করতে পারে। এতে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হতে পারে।
ওমেগা-৩ ও ওমেগা-৬-এর উপস্থিতি
তেলাপিয়ার মতো চাষের মাছগুলোতে ফ্যাটি এসিড ওমেগা-৩ ও ওমেগা-৬-এর ক্ষতিকর উপস্থিতি থাকে। এ থেকে মানবশরীরে প্রদাহ তৈরি হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ   মেহেদি পাতায় সুস্থ জীবন!

LEAVE A REPLY