‘ধূমপানের কারণে দেশের ৮০ লাখ মানুষ মারাত্মক রোগে আক্রান্ত’

0
14
ধূমপানের কারণ

ধূমপানের কারণে বাংলাদেশে ৮০ লাখ মানুষ সিওপিডি, হৃদরোগ, উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক ইত্যাদি মারাত্মক রোগে আক্রান্ত। ১৫ নভেম্বর বুধবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) বিশ্ব সিওপিডি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন।

তারা বলেন, বিশ্বে ধূমপানের কারণে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩০ কোটি। সিওপিডি বা ক্রনিক অবসট্রাকটিভ লান্স ডিজিজ ফুসফুসের একটি দীর্ঘমেয়াদি ও মারাত্মক রোগ। ধূমপান পরিহারের মাধ্যমে সিওপিডিসহ অনেক রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, পৃথিবীতে আনুমানিক ৩০ কোটি ও বাংলাদেশে আনুমানিক ৮০ লক্ষ মানুষ এ রোগে আক্রান্ত। এ রোগটি বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর ৪র্থ প্রধান কারণ।

বিশ্ব সিওপিডি দিবস উপলক্ষ্যে বিএসএমএমইউতে সচেতনতামূলক র‌্যালি ও সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে বক্তারা বলেন, জীবাশ্ম-জ্বালানি থেকে উৎপন্ন ধোঁয়া যেমন কয়লা, কাঠ, শুকনো পাতা ইত্যাদি, ধুলাবালি ও বায়ুদূষণ, কলকারখানায় ও যানবাহনের উৎপন্ন ধোঁয়া ও রাসায়নিক পদার্থ, দীর্ঘমেয়াদি শ্বাসকষ্ট, কাশি, কফ ইত্যাদি এ রোগের প্রধান লক্ষণ। তবে এ রোগের প্রকাশ বিভিন্ন প্রকারের হতে পারে। চিকিৎসকের মাধ্যমে সঠিক প্রকৃতি নির্ণয় ও চিকিৎসা পদ্ধতি নির্ণয়ের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ইনহেলার ও অন্যান্য ঔষধ সেবনের মাধ্যমে এ রোগ নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। যেহেতু এ রোগ সম্পূর্ণভাবে নির্মূল হয় না তাই প্রতিরোধ-ই সর্বোত্তম পন্থা। এ রোগটি প্রতিরোধের জন্য ধূমপান পরিহার করা, ধুলাবালি ও ধোঁয়া যথাসম্ভব এড়িয়ে চলা ও নিয়মিত ব্যায়াম করা প্রয়োজন।

বক্ষব্যাধি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. একেএম মোশাররফ হোসেন সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. এ এস এম জাকারিয়া স্বপন, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল।

আরও পড়ুনঃ   খাওয়ার পর ধূমপান করলে বিপদ

এ ছাড়া প্যানেল এক্সপার্ট হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ, অধ্যাপক ডা. মোঃ আবদুর রহিম, অধ্যাপক এমএ জলিল চৌধুরী, অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here