নিজের অজান্তেই যে ৫টি অখাদ্য খেয়ে চলেছেন আপনি

0
12
okhaddo

ঘরে তৈরি খাবারের চাইতে এখন অনেকেই বেশী পছন্দ করেন রেডিমেড ফাস্টফুড, বিভিন্ন স্ন্যাক্স এবং পানীয়। কিন্তু এসব খাবারে কী উপাদান আছে, তা কী জানেন আপনি? প্যাকেটজাত, প্রক্রিয়াজাত এসব খাবার সুস্বাদু করতে বা বেশিদিন ভালো রাখার উদ্দেশ্যে এমন সব উপাদান যোগ করা হয় যা শুনলে স্তম্ভিত হয়ে যাবেন আপনি! এসব খাদ্য ও পানীয়র প্রতি বিতৃষ্ণা চলে আসবে আপনার।

কার্বোনেটেড পানীয়

কোকাকোলা, পেপসি, স্প্রাইট- এই জাতীয় কার্বোনেটেড বা বুদবুদ ওঠা পানীয় পছন্দ করেন অনেকেই। এগুলোতে থাকে ব্রোমিনেটেড ভেজিটেবল অয়েল (BVO) নামের একটি উপাদান যা কিনা ইউরোপ এবং জাপানে খাদ্য ও পানীয়তে ব্যবহার করা নিষিদ্ধ। এটি আগে ব্যবহার করা হতো প্লাস্টিক পণ্যে, প্লাস্টিকে আগুন ধরে যাওয়া রোধ করতে। কিন্তু এই বিষাক্ত উপাদানটিই এখন ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন কোমল পানীয় এবং স্পোর্টস ড্রিঙ্কে, যেমন ফান্টা, মাউন্টেইন ডিউ এবং গেটোরেডে। বলা হয়, এসব পানীয়ের উপাদানগুলো একত্রে মিশিয়ে রাখতে এই উপাদান দরকারি। কিন্তু এই উপাদানটি বেশী গ্রহণ করলে ত্বকের ক্ষত, স্মৃতিভ্রংশ, মস্তিষ্কের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ফুড কালার

বেকিং করতে পছন্দ করেন। তাহলে অবশ্যই আপনার জিম্মায় এক বোতল রেড ফুড কালার আছে। রেড ভেলভেট কেক তৈরির জন্য তো এটা লাগেই। কিন্তু আপনি কি জানেন, এই রংটা আসে মূলত পোকার শরীর গুঁড়ো করার পর? ককিনিয়াল ইনসেক্ট নামের পোকাটিকে শুকিয়ে, গুঁড়ো করে একটি দ্রবণে মিশিয়ে তৈরি করা হয় কারমাইন এক্সট্রাক্ট বা লাল ফুড কালার। এটা খাওয়া মানে মূলত গুঁড়ো করা পোকা খাওয়া। এই উপাদানটি অনেকের অ্যালার্জির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

ইন্সট্যান্ট স্যুপ পাউডার

খুব কম সময়ে ‘স্বাস্থ্যকর’ স্ন্যাক্স হিসেবে অনেকেই ইন্সট্যান্ট স্যুপ পছন্দ করেন। কখনো কি আপনার মনে হয়েছে এই স্যুপ একটু মুখে লাগছে? এর কারণ হলো, সিলিকন ডাইঅক্সাইড (বালু) কিছু কিছু খাবারে দেওয়া হয় যাতে তা দলা পাকিয়ে না যায় এবং সহজে আর্দ্র না হয়। বিভিন্ন পাউডার যেমন ইন্সট্যান্ট স্যুপ পাউডার, ড্রাই কফি ক্রিমারে এই বালু দেওয়া হয়।

আরও পড়ুনঃ   সাবধান: ভিটামিন ডি-এর ঘাটতি হলেই কিন্তু কমবে স্মৃতিশক্তি!

পাউরুটি

পাউরুটিতে কী থাকে জানেন? মানুষের চুল। না, বেকারি থেকে আনা রুটি ছিঁড়েখুঁড়ে চুল খুঁজে পাবেন না আপনি। মূলত এল-সিস্টিন নামের একটি অ্যামিনো এসিড যোগ করা হয় কমার্শিয়াল বেকারিগুলোতে, ময়দার খামির কন্ডিশনার এবং ফ্লেভার এনহ্যান্সার হিসেবে। এই রাসায়নিকটি তৈরির জন্য ব্যবহার করা হয় মানুষের চুল, মুরগীর পালক এমনকি অন্যান্য কিছু প্রাণীর পশম।

মাইক্রোওয়েভ পপকর্ন

অনেক পপকর্ন আছে যেগুলোকে মাইক্রোওয়েভে গরম করে নিলেই তৈরি হয়ে যায়। কিন্তু এগুলর প্যাকেটের ভেতরের দিকে থাকে এমন সব রাসায়নিক যা আমাদের জন্য ক্ষতিকর। যাতে প্যাকেটের ভেতর থেকে তেল বের না হয়, এর জন্য এসব প্যাকেটের ভেতরে দেওয়া হয় পারফ্লোরিনেটেড কেমিকেলের একটি স্তর। এগুলো কোলেস্টেরল বাড়ানো, স্পার্মের ক্ষতি করা থেকে শুরু করে বন্ধ্যাত্ব এবং এডিএইচডির মত সমস্যা তৈরি করতে পারে।  এটা ইমিউন সিস্টেমকে দুর্বল করে বিভিন্ন রোগের প্রতি স্পর্শকাতর করতে পারে আপনাকে।

সূত্র: Reader’s Digest

কে এন দেয়া

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here