নিজ সন্তান জন্ম দেয়া ফেলে রোগীর সন্তান জন্মে সাহায্য করতে গেলেন ডাক্তার!

0
96
সন্তান জন্ম দেয়া

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা:

অন্য সকল পেশা থেকে ডাক্তারী পেশা সকল দিক থেকেই সম্পূর্ন ভিন্নধর্মী এবং অন্য কোন পেশার চাকুরীজীবীদের সাথে ডাক্তারদের কোন তুলনা কখনোই চলে না। একজন ডাক্তার তার রোগীদের জন্য যতখানি ডেডিকেশন রাখেন সেটা অন্য কোন পেশার সাথে তুলনাই করা যায় না।

তারা প্রতিদিন তাদের রোগীদের সুস্থতা নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন জটিল এবং কঠিন রোগ-শোকের বিপরীতে রীতিমত যুদ্ধ করেন। প্রতিদিন ঘন্টার পর ঘন্টা বিরামহীন ভাবে কাজ করে যান। এমনকি একদম গভীর রাতেও রোগীদের সেবা দেবার জন্য তাদের প্রতি মুহূর্তেই প্রস্তুত থাকতে হয়। একজন ডাক্তারকে প্রতিদিন যে সকল ধকল এবং চাপের মুখোমুখি হতে হয়, সেটা আমাদের মত সাধারণ মানুষদের জন্য একেবারে কল্পনাতীত।

ডাক্তারদের এমন বহু বহু ত্যাগ তিতিক্ষা এবং নিজের সবটুকু শ্রম তাদের রোগীদের জন্য উৎসর্গ করার বহু নজির আছে। তারই ঝুলিতে নতুন ভাবে আরো একটি মাইল ফলক যুক্ত করলেন ডাক্তার অ্যামান্ডা হেস। দ্যা কেন্ট্যাকি’র ডাক্তার অ্যামান্ডা হেস হসপিটালে নিজেই তৈরি হচ্ছিলেন নিজের সন্তান জন্ম দেবার জন্য। এমন সময়ে কয়েকজন নার্সের কথা শুনে বুঝতে পারেন একজন রোগী খুব বিপদজনক অবস্থায় আছেন।

অ্যামান্ডার সহকর্মী হ্যালা স্যাবরী তার ফেসবুক পোষ্টে লিখেছেন, “অ্যামান্ডা তার সন্তান ডেলিভারির জন্য তৈরি হচ্ছিল এমন সময় সে নার্সদের কথা শুনে ফেলে যারা একজন লেবার পেশেন্ট এর জন্য তৈরি হচ্ছিল। সেই পেশেন্ট এর অবস্থা এবং আগত সন্তান খুব বিপদজনক অবস্থায় ছিল। যে ডাক্তার এর উপস্থিত থাকার কথা ছিল সেই ডাক্তার তখনো হসপিটালে এসে পৌছাননি, কিন্তু তখন হাতে অপেক্ষা করার মতো একদমই সময় ছিল না।” 

WKYT-TV তে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ডাক্তার অ্যামান্ডা বলেন, ‘’সেই সময়ে অ্যামান্ডার স্বামী ফোন কলে ছিল। এবং সেই প্রথম অবাক হয়ে জিজ্ঞাসা করেন- কে অতো জোরে চিৎকার করছে?’’

অস্টেওপ্যাথিক মেডিসিন এবং ধাত্রীবিদ্যা ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার অ্যামান্ডা তখনই বুঝতে পারেন তার সাহায্য করতে হবে। যদিও তার নিজেরই তখন সন্তান জন্ম দেওয়ার সময় হয়ে গেছে।

সে তৎক্ষণাৎ সেই রোগীর কাছে যাবার জন্য তৈরি হয়ে যান। অ্যামান্ডা জানান WKYT-TV কে।

“আমি সাথে সাথেই আরেকটি গাউন পড়ে নেই নিজেকে ঠিকভাবে ঢেকে রাখার জন্য এবং একটি বুট জুতা পড়ে নেই যে কোন ধরণের পানি জাতীয় পদার্থ থেকে নিরাপদে থাকার জন্য। এরপরেই আমি তার (রোগী) রুমের দিকে রওনা দেই।”

রোগী ছিলেন লিথ হ্যালীডে জনসন যিনি কিছুদিন আগেই অ্যামান্ডার কাছে এসে চেকআপ করিয়েছিলেন। অ্যামান্ডার চেহারা দেখার সাথে সাথেই লিথ অনেক স্বস্তি বোধ করেন।

WKYT-TV কে লিথ জানান, “আমি অনেক ভাগ্যবতী যে আমার সেই সময়ে আমার পাশে অ্যামান্ডা ছিলেন। আমরা সকলেই তার কাছে অনেক কৃতজ্ঞ।” 

লিথ এর ডেলিভারির কিছুক্ষণের মধ্যে অ্যামান্ডা নিজে তার কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। যার নাম রাখা হয় এলেন জয়সি।

এই ঘটনার পরপরই ডাক্তার অ্যামান্ডা এখন সকলের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু। কিন্তু বিনয়ী অ্যামান্ডা বলনে, ‘’আমি আমার কাজকে ভালোবাসি। আমি সকল মায়েদের এবং বাচ্চাদের যত্ন নিতে ভালবাসি এবং আমার মতোই বেশীরভাগ ডাক্তার সবসময় নিজেদের রোগীদের কথা চিন্তা করেন যখন কিনা ডাক্তার নিজেই রোগী!’’

সূত্র: বাজফিড

সম্পাদনা : রুমানা বৈশাখী 

আরও পড়ুনঃ   সহজ পরিক্ষায় জেনে নিন সন্তান ছেলে হবে না মেয়ে? জেনে রাখুন কাজে লাগবে!

LEAVE A REPLY