বাংলাদেশী চিকিৎসা বিজ্ঞানীর বিরল অর্জন

0
85
চিকিৎসা বিজ্ঞানী ,বিজ্ঞানী

দেশের বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা· এবিএম আব্দুল্লাহ’র চিকিৎসা শাস্ত্রের দু’টি সহায়ক গ্রন্থ এখন বিশ্বের ৩০টি দেশে প্রকাশ করা হচ্ছে।

দেশের বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডাঃ এবিএম আব্দুল্লাহ লিখিত চিকিৎসা শাস্ত্রের ওপর ৪টি গ্রন্থ দুটি আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান প্রকাশ করেছে। এই ৪টি গ্রন্থের মধ্যে দু’টি গ্রন্থ প্রকাশ করেছে বিশ্বখ্যাত চিকিৎসা গ্রন্থ প্রকাশক এলসেলভিয়ের। ব্রিটিশ, মার্কিন ও জার্মান ভিত্তিক এই প্রকাশনা সংস্থাটি বাংলাদেশের কোন চিকিৎসা বিজ্ঞানীর বই প্রথম প্রকাশ করলো। গ্রন্থ দু’খানি হচ্ছে শর্ট কেস ইন ক্লিনিক্যাল মেডিসিন ও রেডিওলজি ইন মেডিক্যাল প্রাকটিস-এর ওপর। প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই গ্রন্থ দু’খানি ভারত, পাকি-ান, নেপাল, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ফিলিপিন, মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের ৩০ থেকে ৪০টি দেশে বাজারজাত করছে। বাংলাদেশের কোন চিকিৎসকের জন্য এটা এক বিরল সম্মানের। অধ্যাপক এবিএম আব্দুল্লাহর অপর দু’টি চিকিৎসা শাস্ত্রের ওপর গ্রন্থ হচ্ছে ইসিজি ইন মেডিক্যাল প্রাকটিস এবং কেস হিস্ট্রি এবং ডাটা ইন্টারপিটেশন ইন মেডিক্যাল প্রাকটিস। এ দু’টি গ্রন্থ প্রকাশ করছে ভারতের বিখ্যাত প্রকাশনা সংস্থা জায়পি। গ্রন্থ চার খানির লেখক অধ্যাপক এবিএম আব্দুল্লাহ দেশের একজন স্বনামধন্য মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এবং তিনি যুক্তরাজ্য থেকে মেডিসিনের ওপর এমআরসিপি ও এফআরসিপি লাভ করেন। অত্য- সহজবোধ্য ইংরেজী ভাষায় রচিত লেখকের প্রধান দু’খানি চিকিৎসা বিষয়ক গ্রন্থের প্রকাশক এলসেলভিয়ার-এর মতে ইতিমধ্যেই অধ্যাপক আব্দুল্লাহ’র মেডিসিন ও ইমেজিং-এর ওপর গ্রন্থ দু’টি ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। এমনকি পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন বইয়ের দোকানে সরবরাহকৃত এসব বই বিক্রয় হয়ে গেছে। অচিরেই এসব গ্রন্থ বাংলাদেশে পাওয়া যাবে। মেডিসিনের ওপর লেখা অধ্যাপক এবিএম আব্দুল্লাহ’র সহায়ক গ্রন্থ শর্ট কেস ইন ক্লিনিক্যাল মেডিসিন গ্রন্থখানির বিশেষত্ব হচ্ছে, শরীরের বিভিন্ন সাধারণ রোগ সম্পর্কে অত্য- সহজ ভাষায় লেখা হয়েছে। রোগের বর্ণনা, রোগ নির্ণয় পদ্ধতি, জটিলতা এবং চিকিৎসার অত্য- সাবলীল বর্ণনা স্থান পেয়েছে। বইটিতে ৬ থেকে ৭শতটি রোগ বিষয়ক ছবি স্থান পেয়েছে। যা রোগ নিরূপনে অত্য- সহায়ক। এধরনের সহায়ক গ্রন্থ রচনার পেছনে কি উদ্দেশ্য কাজ করেছে এমন প্রশ্নের জবাবে লেখক অধ্যাপক আব্দুল্লাহ জানান, মেডিক্যাল ছাত্র-ছাত্রী, এফসিপিএস, এমডি, এমআরসিপি, এফআরসিপি শিক্ষার্থীদের সাহায্যকারী বই হিসাবে গ্রন্থখানি অত্য- উপযোগী। তিনি জানান, বইটি বের হবার পর তথ্য, উপাত্ত ও সাবলীল উপস্থাপনার জন্য ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। গ্রন্থখানিতে রয়েছে রোগের সাধারণ পরীক্ষা, হূদরোগ, শ্বাসতন্ত্রের সমস্যা, স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা, বাতজ্বর, চোখের সাধারণ সমস্যা, চর্মরোগ ও অন্যান্য চিকিৎসা বিষয়ক নানা সমস্যার সহজবোধ্য সচিত্র বর্ণনা ও তার প্রতিকার স্থান পেয়েছে। বহুজাতিক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান এলসেলভিয়ের প্রকাশিত অধ্যাপক এবিএম আব্দুল্লাহর অপর গ্রন্থ রেডিওলজি ইন ইমেজিং গ্রন্থটিতে এক্সরে, সিটি স্ড়্গ্যানের ওপর ৫ শতাধিক ছবিসহ নানা বিষয় বি-ারিত বর্ণনা স্থান পেয়েছে। লেখকের গ্রন্থ দু’খানি ইতিপূর্বে স্থানীয় ভাবে ৩টি সংখ্যায় প্রকাশ পায়। এই দুটি গ্রন্থ পর্যালোচনা করে এলসেলভিয়ের গ্রন্থ দু’খানির আ-র্জাতিকভাবে চতুর্থ সংকলণ প্রকাশ করলো। লেখক অধ্যাপক এবিএম আব্দুল্লাহ শুধু একজন স্বনামধন্য মেডিসিন বিশেষজ্ঞ নন, তিনি ডেঙ্গুজ্বর-এর আধুনিক চিকিৎসার অন্যতম প্রবর্তক। তিনি ইত্তেফাকসহ বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে নিয়মিত লিখে থাকেন।

*************************
ডাঃ মোড়ল নজরুল ইসলাম

LEAVE A REPLY