যেসব খাবারে যৌনশক্তি কমে যায়

0
1580
যৌনশক্তি

এখনকার সময়ে অনেক পুরুষই যৌনাকাঙ্ক্ষা কম হওয়ার সমস্যায় ভুগে থাকেন। এই সমস্যার পিছনে খাদ্যাভাস মারাত্মক প্রভাব থাকতে পারে। খাদ্যাভাস আপনার লিবিডোতে ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। বিশেষ করে যখন বয়স বাড়তে থাকে তখন এই ক্ষতিকর প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। তাই যেসব খাবার আপনার যৌন ইচ্ছা কমিয়ে দেয় বা যৌন ক্ষমতা নষ্ট করে সেগুলি খাবারের তালিকা থেকে বাদ দেওয়াই ভালো।যৌন উদ্দীপনা বাড়িয়ে দেয় এমন হাজারো খাদ্যের নাম নিশ্চয়ই শুনেছেন। কিন্তু এমন খাদ্যও আছে, যা কারো যৌন আকাঙ্ক্ষাকে কমিয়ে দেয়। নিচে এমন কিছু খাদ্যের নাম দেয়া হলো:-

যষ্টিমধু:
যষ্টিমধু দিয়ে তৈরি চা খেতে অনেকেই অভ্যস্ত। যষ্টিমধু শরীরে করটিসলের মাত্রা কমিয়ে দেয়। এর ফলে শরীরে টেসটোসটের মাত্রা কমে যায়। ফলে মানুষের যৌন আচরণে এটি নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। তাই যষ্টিমধুর চায়ের পরিবর্তে সবুজ চা খাওয়া যেতে পারে।

কর্ন ফ্ল্যাক্স :
অনেকেই জানেন না কর্ণ ফ্লেক্স এমন একটি খাবার যা আপনার যৌন কামনার সর্বনাশ করে। তাই যদি বিছানাতে রোম্যান্টিক ব্রেকফাস্টের প্ল্যান করেন বা রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে খিদে পায় তাহলে অবশ্যই কর্ণ ফ্লেক্স কে দূরে সরিয়ে রাখুন।কর্ন ফ্ল্যাক্সে ব্যবহৃত চিনি রক্তে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। যা টেসটোসটের মাত্রা কমিয়ে দেয়। টেসটোসটের মাত্রা কমে গেলেই মানুষের যৌন আগ্রহ কমে যায়।

কৃত্রিম চিনি:
কৃত্রিম চিনি শরীরে সেরোটোনিনের মাত্রা কমিয়ে দেয়। মানুষের সুখ অনুভব, কিংবা তাদের মানসিক অবস্থা এই সেরোটোনিনের উপর নির্ভরশীল। সেরোটোনিনের অভাবের কারণে মানুষের মাথা ব্যাথা করে, তারা হতাশা ও বিরক্তিতে ভোগে। যা যৌন আগ্রহের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে কাজ করে ডোপামিন। কৃত্রিম চিনি মানবদেহের এই পদার্থটিকে প্রভাবিত করে। সূত্র: জিনিউজ।

টিনজাত খাদ্য :
বেশির ভাগ টিনজাত খাদ্যে বেশি পরিমাণ সোডিয়াম ও সামান্য পরিমাণ পটাশিয়াম থাকে। টিনজাত খাদ্য মানবদেহের বিভিন্ন অঙ্গে রক্তের স্বাভাবিক গতিতে বাধার সৃষ্টি করে।

আরও পড়ুনঃ   নারীর যৌন রোগ : অর্গাজমিক ডিসওর্ডার

মদ: একটু মদ পান আপনার যৌন আকাঙ্ক্ষা বাড়িয়ে দিতে পারে। তবে অতিরিক্ত মদ খেলে তার পরিণাম কিন্তু সাংঘাতিক। কারণ অতিরিক্ত অ্যালকোহল যৌন জীবনে মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। ইরেক্টাইল সমস্যা সহ, ঠিকভাবে অর্গাজম না হওয়া এবং মিলনের শুরুতেই দ্রুত বীর্যপাতের যাওয়ার কারণ হতে পারে অতিরিক্ত মদ পান করা। আর তাছাড়া অ্যালকোহল আর রিচ ফুড সবসময় আপনাকে তন্দ্রাচ্ছন্ন করে রাখে, ফলে আপনি সেক্সের ব্যাপারে আর উৎসাহ বোধ করেন না।

সয়া: সয়াবিন থেকে তৈরি বেশিরভাগ পণ্যই সাইটোয়েস্ট্রোজেন নামে একটি রাসায়নিক পদার্থ থাকে। এটি পুরুষ ও নারীর দেহে হরমোনের ভারসাম্যে বিরূপ প্রভাব ফেলে। একটি গবেষণায় দেখা গেছে, বিশ্বব্যাপী যারা সয়া পণ্য ভোগ করে তাদের মধ্যে যৌন আগ্রহ কম। তাই যেসব পুরুষ সন্তান গ্রহণের কথা ভাবছেন তারা খাদ্য তালিকা থেকে সয়া একদম বাদ দিয়ে দিন। কারণ সয়া শুক্রাণুর পরিমাণও কমিয়ে দেয়।

পুদিনা পাতা: সুগন্ধির জন্য পুদিনা পাতা অনেক বেশি জনপ্রিয়। কিন্তু যৌন জীবনের জন্য এটি মোটেও ভালো নয়। এটি শরীরে যৌন উদ্দীপনা সৃষ্টিকারী হরমোন টেসটোসটের মাত্রা কমিয়ে দেয় যা শরীরকে ঠাণ্ডা করে দেয় এবং যৌন আগ্রহ কমিয়ে দেয়। তাই সুগন্ধির জন্য পুদিনা বাদ দিয়ে আদা খাওয়ার অভ্যাস করা যেতে পারে। আদা অনেক ভালো।

কফি: কফি আপনার যৌন ইচ্ছা বাড়ানোতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। কফিতে যে ক্যাফেইন থাকে তা আপনার যৌনতার মুড কার্যকর রাখে। তবে অতিমাত্রায় কফি খেলে হতে পারে বিপত্তি! এটি মূত্রথলির ক্ষতি করে এবং যৌন ও থাইরয়েড হরমোন ভারসাম্যহীনতা তৈরি করে।

পনির: গরুর দুধ থেকে তৈরি পনির এখন সুপার মার্কেটে খুবই সহজলভ্য। পনির ছাড়া অনেকের নাশতাই যেন জমে না। পনিরকে হরমোন ও অ্যান্টিবডি তৈরির কৃত্রিম উৎসও মনে করা হয়। তবে বেশি মাত্রায় পনির খেলে শরীরে এস্ট্রোজেন-জাতীয় পদার্থের নিঃসরণ হয়, যা মানুষের যৌন আকর্ষণ কমিয়ে দেয়। এমনকি এর প্রভাবে যৌনশক্তি লোপ পেতেও পারে।

আরও পড়ুনঃ   ছেলেদের জানা জরুরী-সহবাসের চেয়েও যে জিনিস মেয়েরা বেশি পছন্দ করে!

অ্যালকোহল :
এক গ্লাস মদ যৌন আগ্রহ বাড়িয়ে দিতে পারে। কিন্তু অনেক বেশি অ্যালকোহল সেবনে এর উল্টোটা ঘটে। এটা পুরুষের সন্তান জন্মদানের ক্ষমতা কমিয়ে দেয়। তাই এ অভ্যাস থেকে যত বেশি বেরিয়ে আসা উচিত বলে মনে করেন পুষ্টি বিশেষজ্ঞরা।

আর্টিফিসিয়াল সুইটনারঃ 

আর্টিফিসিয়াল সুইটনারের মধ্যে একটি উপাদান থাকে তা শরীরের হ্যাপি হর্মোন নষ্ট করে ফেলে। এর ফলে আপনার লিবিডো সাফার করে। এর কিছু সাইড এফেক্টস আছে যেমন মাথা ব্যাথা, অ্যানসাইটি ডিসওর্ডার আর ইনসোমনিয়া। তাই পরেরবার দোকানে গেলে ন্যাচারাল সুইটনার যেমন মধু অথবা গুড় কিনুন। এতে আরও মধুময় হবে আপনার যৌন জীবন।

চিজঃ 

আজকাল মার্কেটে যে সব ডেয়ারী প্রডাক্ট পাওয়া যায় তা বেশির ভাগ সময়তেই খাঁটি নয়। হাই-ফ্যাট ডেয়ারী প্রোডাক্ট যেমন চিজ খুবই ক্ষতিকর। বেশি মাত্রায় চিজ খেলে শরীরে টক্সিনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয় যা থেকে ন্যাচরাল মুড আপলিফ্টিং হরমোনের মাত্রা কমিয়ে নষ্ট করে দেয়।

ক্রিস্পি ডিলাইটসঃ 

বেডরুমে এক প্যাকেট চিপস আপনার শরীরের বিভিন্ন টিস্যু আর সেল নষ্ট করে দেয়, সেই সঙ্গে আপনার লিবিডো কেও শেষ করে দেয়। পট্যাটো চিপস রেপসিড তেলের মধ্যে ভাজা হয় খুব হাই টেম্পাচারে। তাই ব্যাড ফ্যাট আর হাই টেম্পেরেচার আপনার ‘মুড ফর লাভ’ একেবারে শেষ করে দিতে পারে।

 মিন্টঃ

চুইং গাম মুখে ফেলার আগে একবার ভাবুন! মিন্ট আপনার হজমের উন্নতি করে বা মুখের দুর্গন্ধ দূর করে কিন্তু আপনার লিবিডোর উপরেও কিন্তু প্রভাব ফেলে। মিন্ট, মেন্থল প্রডিউস করে যা আপনার সেক্স ড্রাইভ কে ঠান্ডা করে দেয় | তাই এবার থেকে ভেবেচিন্তে চুইং গাম চেবান।

বিডি-প্রতিদিন ও মর্নিং অবলম্বনে

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ হেলথ নিউজ ,টিপস ,তথ্য এবং মজার মজার রেসিপি নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি হেলথ নিউজ এ ।

LEAVE A REPLY