রূপচর্চায় তেজপাতার বিস্ময়কর ৫টি ব্যবহার!

0
149
রূপচর্চায় তেজপাতা

তেজপাতা রান্নার স্বাদ গন্ধ বাড়িয়ে দেয় বহুগুণ। এর পুষ্টিগুণও অনেক। কাশি সারাতেও তেজপাতা বেশ কার্যকরী। কিন্তু আপনি জানেন কি, রূপচর্চায়ও তেজপাতার রয়েছে অসাধারাণ কিছু ব্যবহার? চুলের খুশকি দূর করা থেকে শুরু করে ব্রণ দূর করা পর্যন্ত রয়েছে তেজপাতার ব্যবহার! আসুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক রূপচর্চায় তেজপাতার বিবিধ ব্যবহার।
১। খুশকি দূর করতে

চুলের খুশকি দূর করতে তেজপাতা অনেক কার্যকরী। শুকানো তেজপাতার গুঁড়োর সাথে টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এবার এটি চুলে লাগান। কিছুক্ষণ পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এটি খুশকি দূর করার পাশাপাশি মাথার চুলকানি দূর করে দিয়ে থাকে।
২। ব্রণ দূর করে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে

১ লিটার পানির মধ্যে ১০টি তেজপাতা গুঁড়ো করে নিন। এবার এটি অল্প আঁচে ১০ মিনিট ফুটিয়ে নিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে ছেঁকে পানিটি আলাদা করে ফেলুন। সকালে ঘুম থেকে উঠে আর রাতে ঘুমাতে যাবার আগে এই দুইবার নিয়ম করে এই পানি দিয়ে মুখ পরিষ্কার করুন। এটি ব্রণ হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দেয় এর সাথে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে থাকে।
৩। উকুন দূর করতে

৫০ গ্রাম তেজপাতা গুঁড়ো ৪০০ মিলিগ্রাম পানিতে জ্বাল দিয়ে ১০০ গ্রাম করে ফেলুন। শুকিয়ে গেলে এই পানি ছেঁকে তেজপাতা গুঁড়ো আলাদা করে নিন। এবার এটি মাথার তালু এবং চুলে ভাল করে ম্যাসাজ করে নিন। ৩-৪ ঘন্টার পর এটি ধুয়ে ফেলুন। এটি উকুন দূর করতে বেশ কার্যকরী।
৪। দাঁত সাদা করতে

তেজপাতা গুঁড়ো করে পেস্টের সাথে মিশিয়ে দাঁত মাজুন। এটি দাঁতের হলদেটে ভাব দূর করে মাড়ির যত্ন নিয়ে থাকে। আপনি চাইলে শুধু তেজপাতা গুঁড়ো দিয়ে দাঁত ব্রাশ করতে পারেন।
৫। কন্ডিশনার হিসেবে ব্যবহার

কিছু তেজপাতা পানিতে সিদ্ধ করে নিন। এবার এটি ছেঁকে ঠাণ্ডা করে নিন। শ্যাম্পু করার পর এই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এটি কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করবে। নিয়মিত ব্যবহারে এটি চুলকে ঝলমলে করে তুলবে।

আরও পড়ুনঃ   কফি গুঁড়োর এই ৫টি ব্যবহার আপনি জানেন কি?

আরো পড়ুন –রূপচর্চায় তেজপাতার অসাধারণ ৬টি গুণ

বহুগুণের তেজপাতা, জেনে নিন ৭টি ভিন্নধর্মী ব্যবহার

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ হেলথ নিউজ ,টিপস ,তথ্য এবং মজার মজার রেসিপি নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি হেলথ নিউজ এ ।

রূপচর্চায় তেজপাতার ব্যবহার

তেজপাতার পুষ্টিগুণ শারীরিক নানা সমস্যা থেকে মুক্ত রাখতে সহায়তা করে। শুধু তাই নয়, তেজপাতার রয়েছে আরও বেশ কিছু অসাধারণ ব্যবহার। আর তা হচ্ছে রূপচর্চায়। অবাক হচ্ছেন? চলুন, তাহলে দেখে নিন রূপচর্চায় তেজপাতার এমনই কিছু অসাধারণ ব্যবহার।
১. একটি প্যানে ২ কাপ পানিতে ৫ টি শুকনো তেজপাতা নিয়ে ঢেকে জ্বাল দিন। এরপর ঢাকনা খুলে ২ মিনিট জ্বাল দিয়ে একটি সসপ্যানে নামিয়ে নিন। এরপর একটি তোয়ালে দিয়ে মাথাসহ সসপ্যানটি ঢেকে ভাপ আপনার ত্বকে নিন। এভাবে মিনিট দশেক ভাপ নিলেই যথেষ্ট। সপ্তাহে ২বার এভাবে করুন, ব্রণ ও রিংকেল সমস্যার সমাধান থাকবে না।
২. তেজপাতার অ্যান্টিফাঙ্গাল, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বকের যে কোনো ইনফেকশন দূর করতে বিশেষভাবে কার্যকরী। ছোটখাটো কাটা ছেঁড়া, জখমের দাগ এবং পোকামাকড়ের কামড়ের সমস্যা সহজেই দূর করতে পারেন কাঁচা তেজপাতার রসের মাধ্যমে।
৩. পানিতে তেজপাতা ভালো করে ফুটিয়ে তা ছেঁকে নিয়ে চুল ধোয়ার কাজে ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুল পড়ার সমস্যা একেবারেই দূর হয়ে যাবে। এছাড়াও তেজপাতার তেল মাথার ত্বকে লাগালে চুলের খুশকি সমস্যা থেকেও দ্রুত রেহাই পাবেন।
৪. ৫০ গ্রাম তেজপাতা গুঁড়ো করে নিয়ে ৪০০ মিলি পানিতে জ্বাল দিতে থাকুন, যতোক্ষণ না ১০০ মিলিতে পৌঁছায়। শুকিয়ে এলে ছেঁকে পানি আলাদা করে নিন। এই পানি চুলের গোঁড়ায়, মাথার ত্বকে ভালো করে ম্যাসেজ করে নিন। ৩-৪ঘণ্টা রেখে চুল ধুয়ে ফেলুন। ব্যস, উকুন সমস্যা দূর হয়ে যাবে।
৫. তেজপাতা গুঁড়ো করে টুথপেস্টের সঙ্গে মিশিয়ে তা দিয়ে দাঁত ব্রাশ করে নিন। দেখবেন খুব দ্রুত দাঁতের হলদেটে দাগ একেবারেই দূর হয়ে গিয়েছে। তবে ঘন ঘন এই পদ্ধতি অবলম্বন করবেন না।
৬. কাঁচা তেজপাতা অলিভ অয়েলে ফুটিয়ে তেজপাতার তেল তৈরি করে নিতে পারে। এই তেল দেহে ব্যবহার করলে মশা থাকবে দূরে এবং মশার কামড়ের জ্বালাপোড়া থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here