রোজার মাসে ওজন বাড়ছে? জেনে নিন সমাধান

0
56
ওজন

অন্য সময় ডায়েট করলেও রমজান মাসে ডায়েট করা হয় না অনেকেরই। সারা দিন রোজা রেখে ক্লান্ত হয়ে ব্যায়ামও করা হয় না। তার ওপর তেলে ভাজা খাবার, ভরপেট ভাত খেয়ে সেহরি খাওয়া তো আছেই। সব মিলিয়ে রোজা রেখেও ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। রোজায় ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য জেনে নিন কিছু জরুরি বিষয়।

রমজানে রোজা রাখার কারণে স্বাভাবিকভাবে আমাদের শরীরের ওজন হ্রাস পাওয়ার কথা। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে ঘটে ঠিক উল্টোটা। আমরা অনেকেই বরং এই সময় মুটিয়ে যাই।

কিছুটা অবাক করার মতো বিষয় হলেও এটিই সত্য। রোজার সময় ওজন বেড়ে যাওয়ার কিছু কারণ রয়েছে:
• সারা দিন না খেয়ে থেকে ইফতারির পর স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি খাওয়া।
• বেশি পরিমাণে তেল ও চিনিযুক্ত খাবার খাওয়া।
• সারা দিন কম কাজ করা বা কাজের মধ্যে না থাকা।
• ইফতারি থেকে সেহরির মধ্যবর্তী সময়ে বারবার খাওয়া।

একটু সচেতন হলে আমরা সহজেই রমজানে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারি। এ জন্য যে সব বিষয়গুলি অনুসরণ করে চলতে হবে সেগুলি হল:
• বেশি খাদ্য গ্রহণের অভ্যাস ত্যাগ করুন। ইফতারে ক্ষুধা নিবারণের জন্য যেটুকু খাদ্য প্রয়োজন সেটুকু গ্রহণ করুন।
• খাবার ভালোভাবে চিঁবিয়ে খান। ভালোভাবে না চিঁবিয়ে দ্রুত খাওয়া হলে কতোটুকু খেলে পেট ভরছে তা ঠিকমতো বোঝা যায় না। এর ফলস্বরূপ বেশি খাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
• সম্ভব হলে প্রথমে স্যুপ ও সালাদ গ্রহণ করুন। এই দুটি খাদ্যে ক্যালরি কম থাকায় বেশি পরিমাণে গ্রহণ করলেও ওজন বাড়ার সম্ভাবনা থাকে না।
• বাড়িতে তৈরি ফলের জুস খান। বাজারের জুসে বেশি পরিমাণে চিনি থাকায় গ্রহণ না করাই উত্তম।
• শারীরিক পরিশ্রম একেবারে বাদ দেবেন না। প্রতিদিন কমপক্ষে আধা ঘন্টা বাইরে হেঁটে আসুন। এতে আপনার শরীরের অতিরিক্ত ক্যালরি ক্ষয় হবে।
• মাছ-মাংস বেশি না খেয়ে ফল ও শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস করুন।
• রোজা ভাঙার পর কমপক্ষে আট গ্লাস পানি পান করুন।

আরও পড়ুনঃ   পর্যাপ্ত ঘুম না হলে “মাতালের” মত আচরণ করবেন: বিশেষজ্ঞদের হুঁশিয়ারি

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ হেলথ নিউজ ,টিপস ,তথ্য এবং মজার মজার রেসিপি নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি হেলথ নিউজ এ ।

LEAVE A REPLY