শরবতের নামে আসলে কী খাচ্ছেন?

0
33
শরবত, বিষ

শরবতের নামে বিক্রি হচ্ছে বিষ!

আনিসুর রহমান এরশাদ: খোলা শরবতে স্বস্তির বদলে ঝুঁকি বাড়ছে। বাজারের খোলা শরবত খেয়ে অনেকেই বিভিন্ন ধরনের অসুস্থতায় আক্রান্ত হচ্ছেন।  ফুটপাতের শরবতের দোকানে একই গ্লাসে সবাই খাচ্ছেন। শরবত বিক্রেতারা অপরিচ্ছন্ন পাত্রে পানি সংগ্রহ করে তাঁর সঙ্গে বরফ মেশাচ্ছেন। ব্যবহৃত বরফ বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই বিশুদ্ধ পানি দিয়ে তৈরি করা হয় না। আবার শরবত তৈরির সময় মিষ্টির পরিবর্তে ব্যবহার করা হচ্ছে ক্ষতিকর ঘনচিনি ও স্যাকারিন। এ ছাড়া অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খোলা অবস্থায় বিক্রি শরবতে কখনো মাছি যেমন বসছে, তেমনি পড়ছে ধুলা-বালু। ফলে সহজেই জীবাণু আক্রান্ত হচ্ছে শরবত পানকারীরা।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, বাইরের খোলা খাবার, অনিরাপদ পানি, রাস্তার দোকানের শরবত, আখের রস ইত্যাদি এড়িয়ে চলবেন। বাইরে বের হবার সময় বাসা থেকে বিশুদ্ধ খাবার পানি কাঁচের বোতলে বহন করুন। খাবার পানি ভালো করে ফুটিয়ে তারপর ঠাণ্ডা করে পরিষ্কার পাত্রে সংরক্ষণ করুন। ফুটানো পানি দুই দিনের মধ্যে পান না করা হলে ফেলে দিন। খোলা  শরবত খেয়ে  নিজের অজান্তে বহু রোগের জীবাণু প্রতিনিয়তই নিজের শরীরে অবাধে ঢুকার ব্যবস্থা ভুলেও করবেন না। কেননা এতে প্রাথমিক পর্যায়ে জানতে না পারলেও ডায়রিয়া, আমাশয়, টাইফয়েড, কলেরা ও হেপাটাইটিস ‘এ’ এবং ‘ই’র মতো রোগগুলো বহন করছে পরে।

বাংলামটর থেকে মগবাজারের দিকে রাস্তায় দেখা যায়,  পিপাসা নিবারণের জন্য ছুটে যাচ্ছেন ফুটপাতের কোনো ভাসমান শরবতের দোকানে। ভাসমান শরবতের দোকানে যেয়ে গ্লাসে চুমুক দিচ্ছেন অনেকে। শরবতে লোভনীয় ফল মূল দেয়া হয়েছে। ৪টি বালতিতে করে বিভিন্ন ধরনের শরবত নিয়ে বসেছেন মধ্যবয়স্ক একজন। অপরিস্কার গ্লাস ও পাত্র, রাস্তার ধোলা-বালিতো আছেই।

প্রসঙ্গত, রাজধানীতে ভাসমান শরবতের দোকানগুলোতে সাধারণত পেপের রস, লেবু, ওষুধি গাছের ডালপালা ও রস মিশিয়ে ইসবগুলের ভুসি দিয়ে তৈরি শরবত; আখের রস, কুলপি আইসক্রিম, হলুদ রঙের সি-ভিটা শরবত, আপেল ও আনারসের কুচির সাথে বরফ মিশিয়ে ফলের শরবত; বেলের শরবতসহ বিভিন্ন ধরনের লোভনীয় শরবত বিক্রি করতে দেখা যায়। এছাড়াও এসব দোকানে অস্বাস্থ্যকরভাবে তরমুজ, আনারস ও বাঙ্গির টুকরা বিক্রি হতে দেখা যায়। ঘৃতকুমারি পাতার রসের সাথে মিশানো হচ্ছে ইসবগুল ভুসি, তোকমাদানা, হরীতকী, আমলকী, শুকনো বেল, যষ্টিমধু, অর্জুনের ছালসহ প্রায় ১২ ধরনের গাছগাছালির ছাল বা ফল। পিপাসা মেঠাতেই শুধু নয় জন্ডিস, আমাশয়, শরীর কষা, পানিশূন্যতা রোগ ভালো হবার আশায়ও নিম্ন আয়ের মানুষ ভিড় করে এসব দোকানে।

আরও পড়ুনঃ   নানা পদের স্বাস্থসম্মত শরবত-আপনি নিজেই তৈরি করে নিতে পারেন পছন্দের শরবত!

LEAVE A REPLY