শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান দূর করতে পানির মিশ্রণ

0
38
শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান

প্রতিদিন নানাভাবে শরীরে জমছে বিষাক্ত উপাদান। সাধারণত শরীর নিজেই এসব উপাদান বের করে দেয়। কিন্তু যখন আপনি স্বাস্থ্য ফিরে পাওয়ার চেষ্টা করছেন তখন, আপনার খাদ্যাভ্যাসই পারে স্বাভাবিকভাবে ও দ্রুত এসব বিষাক্ত উপাদান শরীর থেকে বের করে দিয়ে সুস্বাস্থ্য ফিরিয়ে আনতে।

প্রচুর পরিমাণে পানি পান:
সাধারণত শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান দূর করতে পানি খুবই কার্যকরী উপাদান। যে কারণে প্রচুর পরিমোণে পানি পান করেই শরীরের বিষাক্ত উপাদান দূর করা সম্ভব।

পানির সাথে চাই আরো কিছু উপাদান:
শুধু পানি নয়, এর সাথে আরো কিছু উপাদান যোগ করে প্রাকৃতিকভাবে আরো সহজে শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান দূর করা সম্ভব। জেনে নেয়া যাক শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান দূর করতে পানির সাথে মেশাবেন যে ৪টি উপাদান।

১. লেবু:
শরীরের বিষাক্ত উপাদান দূর করতে লেবু পানি খুবই কার্যকর পানীয়। লেবুর রস শরীরের বিষাক্ত উপাদান দূর করার পাশাপাশি অ্যাসিডিটির সমস্যা সমাধানেও কাজ করে। একটি পাত্রে লেবুর কয়েকটা কাটা টুকরো ভিজিয়ে রেখে বা গ্লাসে লেবুর রস মিশিয়ে পান করতে পারেন।

২. পুদিনা:
পানিতে পুদিনা পাতা মিশিয়ে পান করলে খুব দ্রুত শরীরের বিষাক্ত উপাদান দূর হয়ে যায়। এতে পানিতে আকর্ষণীয় গন্ধ এবং স্বাদ যোগ হয়। এছাড়া পুদিনা পাতা পাকস্থলী ঠিক রাখাসহ খাবার পরিপাকে সাহায্য করে।

৩. শঁসা:
শঁসা শুধু শরীরে বিষাক্ত উপাদান দূর করার কাজেই লাগে না, পানির সাথে কয়েক টুকরো শঁসা যোগ করতে পারেন। এটা খুব দ্রুত আপনার শরীরে পানির অভাবই শুধু পূরণ করে না, পাকস্থলীর জ্বালাপোড়াভাব দূর করতে এবং পরিপাকক্রিয়া স্বাভাবিক রাখতে খুব ভালো কাজে দেয়।

৪. আদা:
আদা শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান দূর করে, খাবার পরিপাকে সহায়তা করে আর পাকস্থলি স্বাভাবিক রাখে। কয়েক ফালি বা গ্রেট করা আদা পানির সাথে মিশিয়ে নিয়ে পান করুন। এটা শরীরের জ্বালাপোড়াভাব কমাতেও কাজে দেয়।

আরও পড়ুনঃ   ওষুধ না খেয়েও আপনি যেভাবে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন

শরীর থেকে বিষাক্ত উপাদান দূর করার পরিপূর্ণ পানীয়:
এক গ্লাস পানিতে দু’টুকরো শঁসা, কয়েকটা পুদিনা পাতা, পরিমাণমতো লেবুর রস ও সামান্য আদা মিশিয়ে নিয়ে পান করুন। এ পানীয় নিয়মিত পান করলে শরীরের বিষাক্ত উপাদানগুলো বের হয়ে যাবে, আপনি হবেন সু-স্বাস্থ্যের অধিকারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here