অসময়ে কেন চেহারায় পড়ছে বয়সের ছাপ?

0
বয়সের ছাপ

সাধারণত বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে মুখের ত্বকে বয়সের ছাপ দেখা দেওয়া শুরু করে। তবে অনেকের ত্বকেই একটি সাধারণ সমস্যা দেখা দেয়। আর তা হচ্ছে, অল্প বয়স থেকেই ত্বকে বয়সের ছাপ দেখা দেওয়া। ত্বকে বয়সের ছাপ দেখা দেওয়া বলতে বোঝায় মুখের ত্বক কুঁচকে যাওয়া, ঝুলে যাওয়া, ঠোঁট ও চোখের পাশে বলিরেখা দেখা দেওয়া প্রভৃতি।

এই সকল সমস্যা অল্প বয়সে দেখা দেওয়ার ভিন্ন ভিন্ন কারণের মাঝে প্রধান কারণ হলো ত্বকের সঠিক যত্নের অভাব ও নিত্যদিনের কিছু অভ্যাস! মুখের ত্বকের নিয়মিত ও সঠিকভাবে যত্ন নিতে পারলে কখনোই এই সমস্যাটি দেখা দেবে না। কিন্তু সঠিক পরিচর্যা, যত্নের অভাব এবং সচেতনতার অভাবে মুখের ত্বকে বয়সের ছাপ চলে আসবে খুব দ্রুত। একইসাথে রয়েছে প্রতিদিনের কিছু অভ্যাস, যা অজান্তেই ক্ষতি করে ফেলছে আমাদের মুখের ত্বকের। এই সকল সৌন্দর্যচর্চার অভ্যাসগুলো মুখের ত্বকে ইতিবাচক প্রভাব ফেলার পরিবর্তে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে দেয় খুব দ্রুত। জেনে নিন কোন অভ্যাসগুলো ক্ষতি করছে এবং বয়সের ছাপ ফেলে দিচ্ছে আপনার ত্বকে।

সানস্ক্রিম ব্যবহার না করা

ত্বকে বয়সের ছাপ দ্রুত পড়ার অন্যতম প্রধান কারণ হলো সানস্ক্রিম ব্যবহার না করা। এমনটা ঘটার কারণ হলো রোদের প্রখর আলো যাতে থাকে ইউভি (UV- Ultraviolet) রশ্মি। এই ক্ষতিকর ইউভি রশ্মি ত্বকের উপরের অংশ তো বটেই, ভেতরের অংশেও ক্ষতিকর ও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে দেয়। যার ফলে অল্প বয়স থেকেই মুখের ত্বকে বলিরেখা দেখা দেওয়া শুরু করে।

ব্রণ খোঁচানোর অভ্যাস

মুখের ত্বকে ব্রণ দেখা দিলে অনেকেই সেটা হাতের আঙ্গুল ও নখ দিয়ে খোঁচাখুঁচি করে থাকেন। যার ফলে ত্বকে প্রদাহের সৃষ্টি হয়, ত্বকে দাগ বসে যায় ও ত্বকে ক্ষত সৃষ্টি হয়। ত্বকের এই সকল সমস্যা বয়সের ছাপ ফেলে দেবার জন্য দায়ী অনেকাংশে।

মেকআপ সঠিকভাবে না তোলা

ধৈর্য ধরে মেকআপ করার ব্যাপারে ক্লান্তি কাজ না করলেও মেকআপ তোলার ব্যাপারে কেন জানি সকলের খুব আলসেমি কাজ করে থাকে। যে কারণে অনেকেই রাতে মেকআপ না তুলেই ঘুমিয়ে পরেন অথবা অনেক লম্বা সময়ের জন্য মেকআপ মুখে রেখে দেন। মেকআপ মুখের ত্বকের উপরে একটি আস্তরণ ফেলে দেয়। যার ফলে ত্বক তার প্রয়োজনীয় অক্সিজেন পায় না এবং রোমকূপ বন্ধ হয়ে থাকে। যা থেকে ত্বকে ব্রণসহ অন্যান্য সমস্যা দেখা দেওয়া শুরু করে। এই সকল ত্বকের সমস্যা ত্বকের মাঝে দ্রুত বয়সের ছাপ ফেলে দেয়।

সঠিকভাবে মুখের ত্বক পরিষ্কার না করা

মুখের ত্বক নিয়মিতভাবে পরিষ্কার করা প্রয়োজনীয় হলেও, পরিষ্কার করার পদ্ধতি সঠিক হওয়া প্রয়োজন। না হলে ত্বকের জন্য সেটা ভালো ফলাফলের পরিবর্তে খারাপ প্রভাব ফেলে দিতে পারে। ত্বকের ধরন বুঝে ও নিয়ম মেনে ত্বক পরিষ্কার করার ব্যাপারটি অনেকই বোঝেন না।

অতিরিক্ত গরম অথবা ঠাণ্ডা পানি মুখে ব্যবহার করা

মুখ ধোয়ার জন্য খুব বেশী গরম পানি ব্যবহার করলে ত্বক অনেক বেশী শুষ্ক হয়ে ওঠে এবং ত্বকে পানিশূন্যতা দেখা দেওয়া শুরু হয়। অপরদিকে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি ব্যবহারে মুখের ত্বকের রোমকূপ অনেক বড় হয়ে যায়। যার ফলে ত্বকে ময়লা তুলনামূলক ভাবে বেশী প্রবেশ করে। যে কারণে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা বা গরম পানি ব্যবহার সর্বদা এড়িয়ে চলা প্রয়োজন। মুখ ধোয়ার জন্য সবচাইতে উত্তম হলো কুসুম গরম পানি ব্যবহার করা।

প্রয়োজনের তুলনায় বেশী এক্সফলিয়েট করা

নিয়মিত ভিত্তিতে মুখের ত্বক সহ শরীরের অন্যান্য অংশেও এক্সফলিয়েট করা প্রয়োজন ত্বকের মরা চামড়া তুলে ফেলার জন্য। কারণ, নিয়মিতভাবে এক্সফলিয়েট করা না হলে ত্বকে মরা চামড়ার আস্তরণ পড়ে যায়, যার ফলে ত্বকে ব্রণসহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা শুরু করে। এক্সফলিয়েট করা প্রয়োজন হলেও সেটা কখনোই বেশী করা ত্বকের জন্য ভালো ফলাফল বয়ে আনে না। বরঞ্চ, প্রয়োজনের তুলনায় বেশী এক্সফলিয়েট করা হলে ত্বক তার স্বাভাবিক কোমলতা ও নমনীয়তা হারিয়ে ফেলে। যার ফলে ত্বকে বয়স্ক ভাব দেখা দেওয়া শুরু করে।

অনেক বেশী মেকআপ সামগ্রী ব্যবহার করা

প্রাকৃতিকভাবেই সকলের ত্বকে স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা ও কোমলতা থাকে। তারপরেও নিজেকে আরো কিছুটা গোছানো ও সুন্দর দেখানোর জন্য মেকআপ সামগ্রী সকলেই কম বেশী ব্যবহার করে থাকেন। পরিমাণের চাইতে অনেক বেশী ও ঘনঘন মেকআপ সামগ্রী ব্যবহার কখনই ত্বকের জন্য ভালো ফলাফল বয়ে আনে না। কারণ সকল ধরনের মেকআপ সামগ্রী তৈরিতেই ব্যবহৃত হয়ে থাকে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল পদার্থ। যা ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়াকে ত্বরান্বিত করে থাকে।

অসচেতনভাবে মেকআপ পণ্য কেনা

কোন ভালো ব্র্যান্ড না দেখে, মেকআপ পণ্যের মেয়াদ লক্ষ্য না করে এবং মেকআপ পণ্য তৈরিতে কী ধরনের কেমিক্যাল ও উপাদান ব্যবহৃত হয়েছে না দেখেই মেকআপ পণ্য কিনে থাকেন এবং সেগুলো ব্যবহার করেন? তবে দুঃখের সাথে জানাতে হচ্ছে, এর ফলেই খুব অল্প বয়সেই আপনার মুখের ত্বকে বয়সের ছাপ দেখা দেওয়া শুরু করবে।

চোখের ত্বকের যত্ন না নেওয়া

শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় মুখের ত্বক বেশ নমনীয়। এই মুখের ত্বকের মাঝে চোখের নিচের ত্বক সবচাইতে বেশী পাতলা ও নমনীয়। চোখের ত্বকের সঠিক পরিচর্যা ও যত্নের অভাবে খুব দ্রুত চোখের নিচের চামড়া কুঁচকে যায়। যার ফলে সকলের চোখের চারপাশের অংশে বলিরেখা দেখা দেওয়া শুরু করে। এতে করে বয়সের ছাপ খুব বেশী বোঝা যায়।

সূত্রBoldsky  

ত্বকে বয়সের ছাপ দূর করতে ৫টি ঘরোয়া পদ্ধতি!

আরও পড়ুনঃ   চোখের নিচের কালো দাগ দূর করার সহজ উপায়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − three =