এই ১২ টি খাবার আপনিও কি ভুল সময় খাচ্ছেন? এই খাবারগুলো আমরা ভুল সময় খাই !

0
166
খাবার খাওয়ার সঠিক সময়?

সুস্থ জীবনযাপনের জন্য পুষ্টিকর খাবার খাওয়া অপরিহার্য। দেহের পুষ্টির চাহিদা পূরণের জন্য এই খাবারগুলো আমরা খেয়ে থাকি। আপনি জানেন কি, এই পুষ্টিকর খাবারগুলো খাওয়ার সঠিক সময় রয়েছে? ভুল সময়ে খাবারগুলো খাওয়ার কারণে হজমে সমস্যা দেখা দেওয়া থেকে শুরু করে অন্যান্য শারীরিক সমস্যাও দেখা দিতে পারে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক পরিচিত এই খাবারগুলো খাওয়ার সঠিক সময়টি।

১) দুধ: ব্রেকফাস্টে দুধ খাওয়াই আমাদের অভ্যাস। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে দুধ খাওয়া উচিত্‌ রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে।
দুধ হজম হতে সময় বেশি লেগে থাকে, যার কারণে দিনের বেলা এটি খাওয়া হলে আপনি অলসবোধ করতে পারেন। রাতে দুধ পান করুন, এতে শরীর রিল্যাক্স হবে এবং কোষগুলো দুধের পুষ্টি ভালভাবে শুষে নিতে পারবে।
২) দই: দিনের বেলা দই খেলে হজমে সাহায্য করবে। কিন্তু এই দই-ই রাতে খেলে হজমে সমস্যা করবে। আবার টকদই আয়ুর্বেদ অনুসারে রাতে টকদই খাওয়া হলে, এটি শরীরে তাপ বৃদ্ধি করে দেয়। যা হজমের সমস্যা, বুক জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করে থাকে। তারা আরও মনে করেন দুপুরের গরমে দই খাওয়া একই সমস্যা সৃষ্টি করে থাকে।
৩) ভাত: রাতে জমিয়ে নয়, ভাত খান দুপুরে। রাতে খেলেই মেদ জমতে পারে শরীরে। ভাত পুষ্টিবিদ এবং ডায়েটিশিয়ানের মতে ভাত এবং ব্রেড জাতীয় খাবার রাতে না খাওয়াই ভাল। এটি পেট ভরিয়ে রেখে হজমে সমস্যা করে থাকে। রাতে ভাত ওজন বৃদ্ধি করে, হজমে দীর্ঘ সময় নিয়ে থাকে।
৪) আপেল: সকালে উঠে আপেল খেলে শরীর থাকবে ঝরঝরে। এর মধ্যে থাকা পেকটিন কোষ্ঠাকাঠিন্য রুখতে সাহায্য করে।
৫) মিষ্টি: খাওয়ার পর মিষ্টিমুখ করাই আমাদের রীতি। তবে মেদ জমাতে না চাইলে মিষ্টি বা আইস ক্রিম খান সকালে। রাতে খেলেই বিপদ।
৬) কলা: অনেকেই ভাবেন বিকেলে ফল খাওয়া উচিত্‌ নয়। কিন্তু কলা খাওয়ার সেরা সময় বিকেল। তবে অবশ্যই খালি পেটে খাবেন না। তবে অবশ্যই খালি পেটে খাবেন না। এটি প্রাকৃতিক অ্যান্টাসিড যা বুক জ্বালাপোড়া দূর করে দীর্ঘ সময় পেট ভরিয়ে রাখে। রাতে কলা খাওয়া অনেকেরই ঠান্ডার সমস্যা সৃষ্টি করে থাকে।
৭) চিজ: ব্রেকফাস্টে খান চিজ। এতে ওজন কমবে। খবরদার এক্সট্রা চিজ পিজা দিয়ে ডিনার করবেন না। মুটিয়ে যাবেন।
৮) বাদাম: ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ও অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টে পরিপূর্ণ বাদাম খাওয়ার সেরা সময় সন্ধে বেলা। সকাল, দুপুর বা রাত নয়।
৯) ড্রাই ফ্রুটস: খেজুর, ফিগ, কিসমিস জাতীয় ড্রাই ফ্রুটস খাওয়ার উপযুক্ত সময় সকাল ঘুম থেকে উঠে। রাতে খেলেই অম্বল হবে।
১০) মাংস: লাঞ্চ বা ডিনার নয়, মাংস খেতে হলে খান বিকেলে।
১১ .কফি অনেক বিশেষজ্ঞরা রাতে কফি পান করতে নিষেধ করে থাকেন। এটি ঘুমে সমস্যা সৃষ্টি করে আপনাকে রাতে জাগিয়ে রাখে। সকাল অথবা দুপুরে কফি পান করতে পারেন। এটি আপনার কর্মোদ্যম বৃদ্ধি করে আপনার ঘুম তাড়াতে সাহায্য করে থাকে।
১১.গ্রিন টি ওজন হ্রাস করতে কিংবা স্বাস্থ্য রক্ষার্থে অনেকেই সবুজ চা বা গ্রিন টি পান করে থাকেন। দিনের যেকোন সময় এটি পান করা স্বাস্থ্যকর নয়। সকালে এটি পান করা থেকে বিরত থাকুন, এতে থাকা ক্যাফিন ড্রিহাইড্রেশন এবং অ্যাসিডিটি সৃষ্টি করতে পারে। তাই বিকেল অথবা সন্ধ্যায় এটি পান করুন।

আরও পড়ুনঃ   "বোবা ধরা" সম্পর্কে ইসলাম কি বলে এবং এর প্রতিকার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

sixteen − 4 =