জরুরি প্রয়োজনে ৯৯৯ কল করুন

0
৯৯৯

৯৯৯ জরুরি সেবা হচ্ছে, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের একটি উদ্যোগ। যা পরীক্ষামূলক ভাবে বাংলাদেশের জনগণের জন্য ফায়ার সার্ভিস, পুলিশি সাহায্য বা অ্যাম্বুলেন্স সেবা নিয়ে কাজ করছে। যে কোন মোবাইল নম্বর থেকে সম্পূর্ণ টোল ফ্রি কল করে বাংলাদেশের নাগরিকরা এই সেবা পাবেন। ৯৯৯ সার্ভিসের প্রশিক্ষিত প্রতিনিধিরা জরুরি মুহূর্তে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ বা অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদানকারীর সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেবেন।

আগামী ৫ ডিসেম্বর সকালে ওসমানী মিলনায়তনে এই সেবাটির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়। এ কারণে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি।

৯৯৯ জরুরি সেবা কিভাবে ব্যবহার করবেন?
বিভিন্ন ধরনের কল গ্রহণ ও জরুরি সেবা প্রদানের জন্য ন্যাশনাল হেল্প ডেক্স-৯৯৯ এর অপারেটরদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। সঠিক ও মানসম্মত সেবা প্রদানের জন্য এই সকল এজেন্টরা কিছু প্রযুক্তিগত সহায়তা পেয়ে থাকেন। তবুও যখন কোন নাগরিক ৯৯৯ এ কল করবেন বেশকিছু বিষয় খেলা রাখা প্রয়োজন।

ঠিকানা প্রদান:
জরুরি সেবা পাওয়ার জন্য সব চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও অপরিহার্য হল সাহায্য প্রার্থীর লোকেশন বা ঠিকানা জানা। অপারেটরকে (এজেন্ট) যতটা সম্ভব আপনার সঠিক অবস্থান বলুন, এক্ষেত্রে জেলা আ উপজেলার নামও বলতে হবে। আপনার সঠিক অবস্থান না জানা থাকলে পাশ^বর্তী বড় রাস্তা,বাজার বা হাইওয়ের নাম বলতে পারেন।

প্রশ্নের সঠিক উত্তর প্রদান:
আপনাকে সঠিক সেবা প্রদানের জন্য অপারেটর বা জরুরি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান (এক্ষেত্রে পুলিশ,ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ) আপনাকে কিছু প্রশ্ন করবেন যাতে তারা যথাযথ কর্মকর্তা বা কর্তৃপক্ষের কাছে আপনার প্রয়োজন জানাতে পারেন অথবা জীবন রক্ষাকারী কিছু পরামর্শ বা করনীয় সম্পর্কে জানাতে পারেন। এ ধরনের প্রশ্নের সঠিক উত্তর প্রদান করে অপাটেরকে সহায়তা করুন। অবশ্য আপনার প্রয়োজনের ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার জন্য আপনাকে হয়তো একই প্রশ্নের উত্তর একাধিকবার দেয়া লাগতে পারে। বিশেষ করে ৯৯৯ থেকে কল ট্রান্সফার হয়ে পুলিশ বা ফায়ার সার্ভিস বা হাসপাতালে পাঠানো হলে এমনটা হতে পারে।

আরও পড়ুনঃ   ডিমের খোসা-শরীরের পক্ষে দারুণ উপকারী ডিমের খোসা

ধৈর্যশীল থাকা:
কলের সময়ে শান্ত থাকুন এবং আপনার সমস্যা বিস্তারিত তুলে ধরুন। অনেক সময় দেখাযায়, নাগরিক তার সমস্যার কথা জানাতে গিয়ে ভাবাবেগে আক্রান্ত হয়ে অপ্রয়োজনীয় কথা বলে থাকেন। এমনটা করা উচিৎ নয়। এরফলে অপাটেরের মূল সমস্যাটা ধরতে ও প্রকৃত সাহায্য করতে অসুবিধা হয়। মনে রাখবেন, আপনি যতটা শান্ত থাকবেন, তত বিশদভাবে আপনার ঘটনার বর্ণনা দিতে পারবেন এবং অপারেটরও আপনাকে তত ভালভাবে সেবা প্রদান করতে পারবেন।

আপনার জরুরি পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করুন:
জরুরি পরিস্থিতি ব্যাখ্যার সময়ে কয়েকটি বিষয়ে সর্তকতার সাথে তথ্য দিন। আপনি নিজে নাকি আপনার কাছের কেউ সমস্যায় পড়েছেন? কিভাবে হল আপনার কোন ধরনের জরুরি সেবার প্রয়োজন? অ্যাম্বুলেন্স?পুলিশ? নাকি অন্য জরুরি সেবা ? কেউ আহত হলে তার পরিস্থিতি পরিষ্কারভাবে বলার চেষ্টা করুন, ব্যক্তির অবস্থা কি খুবই আশঙ্কাজনক? তার চেতনা আছে কি? তিনি কি নিশ্বাস নিতে পারছেন? তার শরীর থেকে কি রক্ত বের হচ্ছে? আপনার স্বাধ্যমত রোগীর অবস্থা বলার চেষ্টা করুন, আপনার কথা বলতে অসুবিধা হলে পাশের কাউকে দিয়ে কথা বলাতে পারেন, কল না কেটে লাইনে থাকুন।

অ্যাম্বুলেন্স সেবা চাইতে এই বিষয়টি মনে রাখুন:
৯৯৯ সার্ভিসের মাধ্যমে যে অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান করা হয়, তা কিন্তু বিনামূল্যে নয়। বস্তুত বাংলাদেশের কোন কর্তৃপক্ষই বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান করে  না। আর ৯৯৯ যেভাবে কাজ করে, নাগরিকের প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেয়। ফলে অ্যাম্বুলেন্সের ধরন, গন্তব্যস্থল ইত্যাদি অনুযায়ী ভাড়ার পরিমাণ নির্ধারিত হয়। তাই অ্যাম্বুলেন্স সেবা চাইতে এসকল তথ্য অপারেটরকে সঠিকভাবে প্রদান করুন। মনে রাখা প্রয়োজন,৯৯৯ থেকে লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান করা হয়না।

ফায়ার সার্ভিসের সেবা চাইতে এই বিষয়টি মনে রাখুন:
শুধুমাত্র অগ্নিকান্ড নয়, ফায়ার সার্ভিস আরও নানা ধরনের সেবা প্রদান করে থাকে। যেমন সড়ক দুর্ঘটনা, নৌ দুর্ঘটনা, আটকে পড়া মানুষ বা পশু,পাখি উদ্ধার ইত্যাদি। ফলে এই ধরনের সেবার প্রয়োজন হলে ৯৯৯ এ ফোর করুন। ঘটনাস্থলে পর্যাপ্ত সাহায্য পাঠানোর জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে অপারেটরকে সহায়তা করুন। চলন্ত অবস্থায় এমর ঘটনা দেখলে নিশ্চিত হবার চেষ্টা করুন, আপনার ফোন করার পূর্বেই ফায়ার সার্ভিস বা পুলিশের কোন ইউনিট সেখানে পৌঁছেছে কি না।

আরও পড়ুনঃ   খাওয়ার পর ধূমপান করলে বিপদ

পুলিশের সেবা চাইতে এই বিষয়টি মনে রাখুন:
জরুরি পুলিশি সেবার ক্ষেত্রে ৯৯৯ অপারেটর আপনাকে টিকটস্থ থানার সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেবে। আপনি সেখানে আপনার অভিযোগটি জানাতে পারবেন। যেহেতু রেফারেন্সের জন্য ৯৯৯ এ কল রেকর্ড করা হয়ে থাকে,তাই পুলিশের সাথে কথা বলার জন্য সঠিক তথ্য প্রদান করুন।শত্রুতা বশত কাউকে ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে ৯৯৯ এ ফোন করলে আপনার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। পুলিশি সাহায্যের ক্ষেত্রৈ অধিকাংশ সময়ই নিকটস্থ থানায় গিয়ে অভিযোগ করতে হয়। কারণ লিখিত অভিযোগ ছাড়া অনেকক্ষেত্রে পুলিশ তদন্ত শুরু করতে পারে না। ৯৯৯ এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট থানার কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে আপনার করনীয় সম্পর্কে জেনে নিন।

অপরাধীর বর্ণনা দিন:
আপনি যদি কোন অপরাধ ঘটতে দেখেন তাহলে দ্রুত নিরাপদ স্থানে পৌঁছান। যত দ্রুত সম্ভব ৯৯৯ এ কল করে আপনি অপরাধীকে চিনে থাকলে তা জানান কিংবা কাউকে সন্দেহ করনে কি না তাও জানান অপরাধীর হাতে অস্ত্র ছিল কিনা জানান। অপরাধী দেখতে কেমন, তার ধর্ম, বয়স, উচ্চতা, উজন, কাপড়ের রং, প্রভৃতির তথ্য দিন। অপরাধী এখন কোথায়? তারা কি পালিয়েছে? কোন দিকে গেছে? তাদের কোন গাড়ি ছিল কিনা, কি গাড়ি? গাড়ির মডেল,রং এবং গাড়ির সাইজ কতটুকুর এমনকি গাড়ির নম্বরের অংশ বিশেষ পর্বটির তথ্য দিন।

ফোনে খোলা রাখুন:
আপনি যদি কোন মোবাইল ফোন থেকে কল করে থাকেন তাহলে আপনার নম্বরটি খোলা রাখুন,যাতে অপারেটর যেকোনো মূহুর্তে আপনার পুনরায় যোগাযোগ করতে পারে। এর বাইরে আপনার চাহিদা অনুযায়ী পুলিশ,ফায়ার সার্ভিস বা অ্যাম্বুলেন্স কর্তৃপক্ষও আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

সচেতনতা তৈরি করুন:
৯৯৯ ইমার্জেন্সী সার্ভিসে বিনা কারণে প্রতিদিন প্রচুর শিশু ফোন করে থাকে।এরফলে প্রকৃত বিপদগ্রস্তরা ক্ষতিগ্রস্ত হন। সময় ও সুযোগ করে আপনার সন্তানকে শেখান কিভাবে এবং কখন ৯৯৯ এ ফোন করতে হবে। কখন ফোন করবে না সেটিও শেখান।

আরও পড়ুনঃ   খালি পেটে আইসক্রিম খাবেন না

প্রতিটি কলই গুরুত্বপূর্ণ:
৯৯৯ অপারেটরের কাছে প্রতিটি কলই গুরুত্বপূর্ণ, সেটা ফলস কলই হোক আর প্রান্ক কলই হোক। যদিও এসব কল প্রকৃতি সেবা প্রদানে বাধা সৃষ্টি করে। ভুয়া কলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আপনার অসতর্কতার কারণে যাতে ৯৯৯ এ কল না যায় সেজন্য আপনার মোবাইলটি রখ করে রাখুন।

এ ব্যাপারে পুলিশ সদর দপ্তরের জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার সহকারী মহাপরিদর্শক সহেলী ফেরদৌস বলেন, এই সেবাটি চালু হলে সাধারণ মানুষেরা তিনটি সংস্থার সেবা পাবে দ্রুত সময়ের মধ্যে। ফলে জনভোগান্তি অনেকটাই কমে আসবে বলে আমরা আশাবাদী।

ন্যাশনাল হেল্প ডেস্কের ৯৯৯ নম্বর চালু

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

one × two =