ঝরে যাক স্কিন ট্যাগ

0
স্কিন ট্যাগ

স্কিন ট্যাগ বলতে গেলে প্রায় সবারই রয়েছে। কারও বেশি, কারও কম। ত্বকের তুলনামূলক পুরু অংশে শিরা ও কোলাজেন একীভূত হয়ে তৈরি হয় স্কিন ট্যাগ।

স্কিন ট্যাগ কী? এতে ত্বকের উপর ছোট মাংসল আঁচিলের মতো পিণ্ড বের হয়। গোলাপি, বাদামি বা লালচে রঙের এ মাংসল পিণ্ডগুলোই স্কিন ট্যাগ। এর বৈজ্ঞনিক নাম অ্যাক্রোকোর্ডন।

সাধারণত চোখের পাতা, ঘাড়, কন‍ুইয়ের উপরের অংশে, পিঠ বা বুকে এগুলো হয়। নারী-পুরুষ সবারই স্কিন ট্যাগ হতে পারে। অনেকসময় এক জায়গায় অনেগুলো স্কিন ট্যাগ দেখা দেয়। তবে চিন্তার কিছু নেই। বাড়িতে বসেই বিসদৃশ স্কিন ট্যাগ অপসারণ করা সম্ভব। জেনে রাখুন কিছু সহজ সমাধান –

আপেল সাইডার ভিনেগার – ঘাড়ের স্কিন ট্যাগ ঝর‍াতে আপেল সাইডার ভিনেগার সবচেয়ে ভালো সমাধান। আপেল সাইডার ভিনেগারে কটন বল ভিজিয়ে স্কিন ট্যাগের উপর বুলিয়ে নিন। এভাবে একমাস করুন।
ক্যাস্টর অয়েল- বেকিং পাউডারে সামান্য ক্যাস্টর অয়েল দিয়ে পেস্ট বানান। আঁঠালো পেস্ট হবে। দুই থেকে চার সপ্তাহ স্কিন ট্যাগের উপর লাগান। ধীরে ধীরে সেগুলো মুছে যাবে।

আনারস – দিনে কয়েকবার আনারসের রস ব্যবহার করুন। স্কিন ট্যাগ পুরোপুরি বিলীন হয়ে যাওয়া পর্যন্ত লাগান। তিল বা আঁচিল তুলে ফেলতেও আনারসের রস লাগানো যায়।

পেঁয়োজের রস – পেঁয়াজ কেটে তার উপর এক চিমটি লবণ ছড়িয়ে একটি পাত্রে সারারাত রেখে দিন। পরদিন সকালে কাটা পেঁয়াজের রস করে বোতলে ভরে রাখুন। ১০-১২ দিন প্রতি রাতে স্কিন ট্যাগে লাগান এ মিশ্রণটি।

কলার খোসা – পাকা কলার খোসা ছোট ছোট টুকরো করে তা স্কিন ট্যাগের উপর লাগান। এবার একটি ওয়ান টাইম ব্যান্ডেজ দিয়ে খোসাটি ত্বকের সঙ্গে লাগিয়ে দিন। এভাবে সারারাত রাখুন। ট্যাগ মিলিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রোজ এটা করুন।

ট্রি টি অয়েল- স্কিন ট্যাগ রিমুভাল উপকরণের মধ্যে ট্রি টি অয়েল সেরা সলিউশন। একটি কটনবল পানিতে ভিজিয়ে, তাতে কয়েক ফোঁটা টি ট্রি অয়েল দিন। এবার চক্রাকারে কটন বলটি স্কিন ট্যাগের উপর ম্যাসাজ করুন। স্কিন ট্যাগ ভ্যানিস করতে এক সপ্তাহ দিনে দু’বার করে ব্যবহার করুন।

আরও পড়ুনঃ   ত্বকের যত্নে বরফের ৫টি কার্যকরী প্যাক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 × five =