ঠোঁট নিয়ে যত অজানা কথা!

0
lip

ঠোঁট, শরীরের খুবই গুরুত্বপূর্ণ অংশ, যা দিয়ে আমরা কথা বলি, খাবার খাই, এমনকি মাঝে মাঝে অনেক দুষ্টুমিও করে থাকি। কিন্তু এগুলি ছাড়াও আমাদের লিপস বা ঠোঁটের এমন কিছু গুণ আছে যা বাকি প্রাণীদের ঠোঁটে নেই।

আসুন জেনে নেওয়া যাক সেসব অজানা কথা-

১। আমাদের শরীরে সব থেকে স্পর্শকাতর অঙ্গ হল ঠোঁট। একাধিক রিপোর্ট অনুসারে, শরীরের এই অংশে কম করে লক্ষাধিক নার্ভ আছে। কিন্তু এই নার্ভগুলিকে রক্ষা করার জন্য নেই কোনও মেমব্রেন। তাহলে একবার ভাবুন, শরীরের সবথেকে নরম জায়গা, কিন্তু তাকে রক্ষা করার কেউ নেই।

২। শরীরের সব অঙ্গ ঘামে, কিন্তু ঠোঁট কখনও ঘামে না। কারণ শরীরের এই অংশে ঘামের গ্রন্থী নেই। তাই তো ঠোঁট খুব তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়।

৩। একজনের ফিঙ্গার প্রিন্টের সঙ্গে যেমন আরেক জনের ফিঙ্গার প্রিন্ট মেলে না, তেমনি আমাদের সবার ঠোঁট কিন্তু আলাদা আলাদা হয়। তাই যদি ভাবেন আপনার ঠোঁটের সঙ্গে আপনার কোনও বন্ধুর ঠোঁটের খুব মিল আছে এটা আপনার ভুল ধারণা।

৪। বয়স যত বাড়তে থাকে, আমাদের ঠোঁট তত মোটা হতে শুরু করে। আসলে বয়স বাড়তে থাকলে আমাদের শরীরে কোলেজেনের উৎপাদন কমে যেতে শুরু করে। ফলে ঠোঁট তার সৌন্দর্য হারাতে শুরু করে।

৫। একাধিক স্টাডিতে একথা প্রমাণিত হয়েছে যে, কোনও মেয়ের ঠোঁট দেখে বুঝে যাওয়া সম্ভব সে কাউকে ভালোবাসতে কতটা পারদর্শী। শুনতে আবাক লাগলেও একথা কিন্তু ১০০ শাতংশ ঠিক।

৬। শরীরের বাকি অঙ্গের মতো ঠোঁটও কিন্তু পঙ্গু হয়ে যেতে পারে। একে ‘বেলস পালসি’ বলা হয়। ফেসিয়াল নার্ভ ক্ষতিগ্রস্থ হলে এমন ধরনের পেরালাইসিস হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

আরও পড়ুনঃ   শরীরে আয়রনের অভাব বুঝবেন কীভাবে?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

19 − six =