পুষ্টিবিদের পরামর্শে জেনে নিন চিনির ৫টি প্রাকৃতিক বিকল্প

0
চিনির প্রাকৃতিক বিকল্প,চিনি

কে এন দেয়া:

চিনি খেতে অনেকেই পছন্দ করিকিন্তু এখনকার দিনে খাবারে চিনি মেশানোটা কিছুটা ভীতিকর, যারা লো ক্যালরি ডায়েটে আছেন তাদের জন্য।নিউট্রিশনিস্ট ফারিয়া ইসলামের পরামর্শ অনুযায়ী চলুন জেনে নেই চিনি খাওয়া কেন অস্বাস্থ্যকর। বেশ কিছু স্বাস্থ্যঝুঁকির সাথে চিনি প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত। যেমন বাড়তি ওজনহৃদরোগলিভার ডিজিজডায়াবেটিসকিডনি ডিজিজ,এমন কি ক্যান্সার!

চিনি হচ্ছে এমন একটি খাবার যার ক্যালোরি ছাড়া কোন রকম কোন পুষ্টিগুণ নেই।

এটি শরীরের স্বাভাবিক হরমোনকে বাধাগ্রস্থ করে এবং বিপাক ক্রিয়া নষ্ট করে যার কারণে অস্বাভাবিক হারে ওজন বেড়ে যেতে পারে।

চিনির বিকল্প: প্রাকৃতিক নাকি কৃত্রিমকোনটা ভাল?

চিনির বিকল্প হিসেবে স্বাস্থ্য সচেতন অনেকেই আর্টিফিশিয়াল সুইটনার ব্যবহার করে থাকেন। তবে অনেক গবেষণা তথ্য রয়েছে যে চিনির কৃত্রিম বিকল্পগুলো কিডনি এবং লিভার ফাংশনে অসুবিধা সৃষ্টি হতে পারে। তাই যারা চিনির বিকল্প ইতিমধ্যেই ব্যবহার করছেন কিন্তু প্রাকৃতিক বিকল্প খুঁজে বেড়াচ্ছেনঅথবা যারা প্রাকৃতিক বিকল্প খুঁজে না পেয়ে এখনও চিনিই খেয়ে যাচ্ছেনতাদের জন্য এই পোস্ট।

চিনির ৭টি বিকল্প যা প্রাকৃতিক এবং সাইড এফেক্টের ভয় নেই:

প্রাকৃতিক বিকল্পগুলোকে রিভিউ করা হয়েছে কয়েকটা দৃষ্টিকোণ থেকে-

· এটা কি ক্যালরিবিহীন?

· এটা কি সহজে ব্যবহার করা যায়?

· এটা কি সহজে বহন/সংরক্ষণ করা যায়?

· এটা কি সব জায়গায় পাওয়া যায়?

১) মধু

মধু খুব সুস্বাদু প্রাকৃতিক মিষ্টান্ন। কিছু রোগের ওষুধ হিসেবে মধু ব্যাবহার করা হয়। ঘরোয়াভাবে বিভিন্ন সমস্যা দূর করতে মধু অনন্য। মধু রক্তে LDL (খারাপ কোলেস্টেরল) এর মাত্রা কমায় এবং HDL (ভালো কোলেস্টেরল) এর মাত্রা বাড়ায়। ঠাণ্ডা কাশিতে মধু খুব উপকারী। ত্বকের উজ্জলতা বাড়াতেও মধুর ব্যবহার অনেক।

– মধু কি ক্যালরিবিহীননা। মধুতে সামান্য ক্যালরি থাকলেও এতে থাকে অনেক ভিটামিন এবং মিনারেলস। তাই এটা গ্রহণ করলে ক্ষতি কিছু নেই।

– মধু কি সহজে ব্যবহার করা যায়চায়ে খুব সহজেই ব্যবহার সম্ভব। ইন্টারনেটে আরও অনেক রেসিপিও পাবেন।

– মধু কি সহজে বহন/সংরক্ষণ করা যায়মধু সহজে নষ্ট হয় না। এটা বাসায় রেখে ব্যবহার সম্ভব। কিন্তু বাইরে কোথাও নিয়ে যাওয়া অসুবিধাজনক। তাই যারা ট্রাভেল করেন অথবা বাইরে কাজ করেনতাদের জন্য এটা ব্যবহার করা কঠিন।

– মধু কি সবজায়গায় পাওয়া যায়বোতলজাত মধু দেশের মোটামুটি সবজায়গাতেই পাওয়া যায়। অনেক ব্র্যান্ড আছেদেশী বিদেশি। তাই মধু কেনার ক্ষেত্রে চয়েসের অভাব নেই।

২) তাল মিস্রি

আমাদের দেশের খুব পরিচিত খাবারের মধ্যে এটি একটা। এটি পাওয়া যায় পলাইরা পাম স্যাপ থেকে। এতে কোন ব্লিচ বা কেমিকেল নাই। এটি অনেক সময় ঠাণ্ডা-কাশির ওষুধ হিসেবে ব্যাবহার করা হয়।

– তাল মিস্রি কি ক্যালোরিবিহীননা! এতে সামান্য ক্যালোরি থাকলেও অন্যান্য পুষ্টিগুণের কথা ভেবে অবশ্যই ব্যবহার করতে পারেন।

– তাল মিস্রি কি সহজে ব্যবহার করা যায়এটা শরবতে খুব সহজেই ব্যবহার করতে পারেন।

– তাল মিস্রি কি সহজে বহন/সংরক্ষণ করা যায়এটা মধুর মত দীর্ঘদিন রেখে ব্যবহার করা যায় না। বাসায় রেখেই ব্যবহার করতে হবেকারণ বাইরে ক্যারি করে নেয়াটা সহজ না।

– তাল মিস্রি কি সব জায়গায় পাওয়া যায়বড় বাজারগুলোয় যেখানে মসলা বিক্রি হয় তেমন দোকানগুলোতে তালমিস্রি পাওয়া যায়। সুপারশপে এক আধটা ব্র্যান্ডের চোখে পড়ে মাঝে মাঝেতবে খুব সহজলভ্য না। আর বাজার থেকে কেনার সময় অবশই গুণগত মান কেমন আছে তা দেখে কিনুন।

৩) নারিকেল এর মিষ্টি

নারিকেল এর শাঁস থেকে এটি সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে আয়রনজিঙ্ক,ক্যালসিয়াম,পটাসিয়াম সহ আর কিছু পুষ্টি উপাদান বিদ্যমান রয়েছে। এর গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স কম। ক্যলোরির পরিমাণ বেশি হলেও গ্লাইসেমিক ইনডেক্স কম থাকায় এটি উপকারি।

– নারিকেল কি ক্যালোরি ফ্রিনা। তবে এর গ্লাইসিমিক ইনডেক্স কম হবার কারণে এটি ব্যবহারে ভয় কম।

– নারিকেল মিষ্টি কি সহজে ব্যবহার যোগ্যমিষ্টি খাবার রেসিপিতে ব্যবহার করা খুব সহজ। ইউটিউবে অনেক রেসিপি পাবেন।

– নারিকেল মিষ্টি কি সহজে সংরক্ষণ/বহনযোগ্যএটা সংরক্ষণ করতে হবে এয়ারটাইট কনটেইনারেবেশিদিন রেখে ব্যবহার করা যাবে না। তাই বাইরে ক্যারি করে নেয়া প্রায় অসম্ভব।

নারিকেল মিষ্টি কি সবজায়গায় পাওয়া যায়না! এটা খুব লিমিটেড কিছু জায়গায় পাবেন যদি কিনতে চান। আর ইন্টারনেট দেখে কীভাবে ঘরেই বানানো যায় তা শিখতে পারেনতবে সেটা সংরক্ষণ করে ব্যবহার করা যাবে না।

৪) স্টেভিয়া

নামটা হয়তো অনেকেরই জানা নেই। স্টেভিয়া হচ্ছে একধরণের গাছ যার পাতার রস মিষ্টি কিন্তু এতে কোন ক্যালোরি নেই। যারা চিনির কৃত্রিম বিকল্প ব্যবহারে ভয় পান তারা এটা ট্রাই করে দেখতে পারেন। স্বাদ চিনির মতো না (চিনি ছাড়া কোন কিছুই আসলে চিনির মতো স্বাদ হবে না) কিন্তু মিষ্টি। কিছুদিন ব্যবহারেই এই স্বাদে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন। যাদের ডায়াবেটিস অথবা বাড়তি ওজনের সমস্যা আছেতারা এটা ট্রাই করে দেখতে পারেন

– স্টেভিয়া কি ক্যালোরিবিহীনহ্যাঁ! স্টেভিয়াতে কোন ক্যালোরি নেই

– স্টেভিয়া কি সহজে ব্যবহার করা যায়স্টেভিয়া পাতা সরাসরি ব্যবহার করা অনেক কঠিন কারণ বাংলাদেশে পাওয়াই যায় না বলা যায়। তবে স্টেভিয়া থেকে তৈরি Chinigo দিয়ে সহজেই চা অথবা শরবত তৈরি করতে পারেন।

– স্টেভিয়া কি সহজে সংরক্ষণ/বহন করা যায়স্টেভিয়া থেকে তৈরি Chinigo স্যাশে আকারে পাওয়া যায়যা ক্যারি করা সহজ।

– স্টেভিয়া কি সবজায়গায় পাওয়া যায়না! এটা কিছু সুপার শপে পাবেন।

৫) গুড়

সবচেয়ে কমন হলেও এর কথা আমরা ভুলতে বসেছি।এটি মূলত আখের বা খেজুরের রস থেকে তৈরি করা হয়। ক্যালরি বেশি হলেও চিনির তুলনায় গুড় অনেকাংশে ভালো। এর মধ্যে রয়েছে Antioxident, Selinium, zinc যা ফ্রি র‍্যাডিকেলগুলোকে বাধা দেয়। এটি লিভারকে পরিষ্কার রাখে।

– গুড় কি ক্যালোরিবিহীননা! তবে এটি চিনির তুলনায় নিরাপদ। কিন্তু ডায়াবেটিস বা বাড়তি ওজনের সমস্যা থাকলে গুড় খেতে পারবেন না।

– গুড় কি সহজে ব্যবহার করা যায়চিনি দিয়ে তৈরি হয় এমন প্রায় সব কিছুই গুড় দিয়ে বানাতে পারবেন। এটাই গুড়ের সুবিধা। স্বাদ একটু আলাদা হলেও এতে অভ্যস্ত হয়ে যাবেন। কিন্তু যাদের ডায়াবেটিস বা বাড়তি ওজনের সমস্যা ইত্যাদি আছেতারা অবশ্যই গুড় এড়িয়ে যাবেন।

– গুড় কি সহজে সংরক্ষণ/বহন করা যায়এয়ার টাইট কনটেইনারে রাখতে পারবেন। তবে বেশি দিন রেখে ব্যবহার করা ঠিক না। আর গুড় সাথে ক্যারি করে নেয়াটা সম্ভব না।

– গুড় কি সবজায়গায় পাওয়া যায়এটা খুব কমন হবার কারণে সব বাজার থেকেই গুড় পাওয়া যায়।

আপনার পছন্দ কোনটা?

চিনির আরও অনেক বিকল্প আছেযেমন খেজুর। তবে আমাদের দেশের খাবারের ধরণ অনুযায়ী এটা ব্যবহার খুব একটা সুবিধার না। চিনির প্রাকৃতিক বিকল্প বাছতে গিয়ে কনফিউজড হয়ে গেলে তা এড়ানোরও উপায় আছে। সবার আগে চিন্তা করবেন আপনার প্রয়োজন কিসের জন্য। তার মানে আপনার কি ক্যালোরি ফ্রি দরকার না অল্প ক্যালোরি হলেও চলবেআপনি কোন ধরণের রান্না বা শরবতে ব্যবহার করবেন করবেনএটা বাসায় কতদিন কীভাবে রেখে ব্যবহার করা যাবেবাইরে ক্যারি করা যাবে কিনা ইত্যাদি। এসব যাচাই করে আপনার পছন্দের চিনির প্রাকৃতিক বিকল্প ব্যবহার করুন। আর চিনির বিকল্প সম্পর্কে আপনার কোন সাজেশন থাকলে আমাদেরকে জানাতে পারেন কমেন্টে। 

রক্তে চিনি কমাতে মেথি কার্যকরী

আরও পড়ুনঃ   শরীরের ১৫টি সাধারণ সমস্যা এড়িয়ে গেলে বিপদের ভয়, বলছেন চিকিৎসকরা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

4 × one =