ফ্রিজে খাবার সংরক্ষণের সঠিক উপায় এবং ফ্রিজে খাবার সংরক্ষণের ১০টি টিপস

0
ফ্রিজে খাবার সংরক্ষণের সঠিক উপায়

ব্যস্ত জীবনে খাবার সংরক্ষণের জন্য সংসারে যে জিনিসটির সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন, তা হলো ফ্রিজ। তবে ফ্রিজে খাবার ঠিকভাবে না রাখা বা ফ্রিজ পরিষ্কার না করার কারণে জন্ম নেয় নানারকম জীবাণু, যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

অনেকেই ফ্রিজে কাঁচা এবং রান্না করা খাবার একসাথে ঢুকিয়ে রাখেন৷ এতে খাবারের স্বাদ, গন্ধ যেমন নষ্ট হয়, তেমনি কমে যায় পুষ্টিগুণ। এছাড়া ফ্রিজ নিয়মিত পরিষ্কার না করার কারণে হয় দুর্গন্ধও৷ তাই ফ্রিজে গাদাগাদি করে খাবার না রেখে একটু ফাঁক রেখে রাখুন৷ বলা বাহুল্য, সেজন্য চাই যথেষ্ট জায়গা৷ তাই সম্ভব হলে প্রথমেই একটি বড় ফ্রিজ কিনে ফেলুন।

ফ্রিজে খাবার গুছিয়ে রাখুন: সবজির জায়গায় সবজি রাখুন৷ তবে সব ধরনের শাক বা সবজি একসাথে রাখবেন না৷ বরং আলাদা আলাদা প্যাকেটে ভরে ফ্রিজে গুছিয়ে রাখুন৷ রান্না করা খাবার, মিষ্টি খাবার বা অন্যান্য খাবার ভাগ বা আলাদা করে রাখলে খাবারের গুণমান যেমন ভালো থাকবে, তেমনি খাবারের আসল স্বাদও বজায় থাকবে।

বেশিদিনের জন্য সংরক্ষণ: যেসব খাবার ডিপ-ফ্রিজে রাখতে চান, তা-ও ভাগ করে ছোট ছোট বক্সে ভরে রেখে দিন৷ পরে প্রয়োজন বুঝে পরিমাণমতো খাবার ডিপ-ফ্রিজ থেকে বের করতে পারবেন৷ কারণ ডিপ-ফ্রিজের খাবার একবার বের করার পর দ্বিতীয়বার ফ্রিজ করা উচিত নয়। এ কথা জানান হামবুর্গের পুষ্টি বিশেষজ্ঞ আর্মিন ভালেট৷ তবে আরো ভালো হয়, যদি বক্সের ওপর খাবারের নাম এবং তারিখ লিখে রাখেন।

রান্নাকরা খাবার: ফ্রিজে রান্নাকরা খাবার বেশিদিন রাখা ঠিক নয়৷ আর রাখলেও তা দিন তিনেক পর বের করে নতুন করে গরম করে নিন। তা না হলে খাবার নষ্ট হয়ে ফ্রিজে দুর্গন্ধ হতে পারে এবং সেই খাবার খেলে শরীরও খারাপ হতে পারে। তাছাড়া ফ্রিজে রান্না করা খাবার রাখার সময় মাছ, মাংস বা সবজি আলাদা করে একটু দূরে দূরে রাখবেন, না হলে সব খাবারের গন্ধ একরকম মনে হবে৷ বিশেষ করে তরকারিতে আদা-রসুনের পরিমাণ বেশি থাকলে।

আরও পড়ুনঃ   হার্ট ভালো রাখতে পাঁচ খাবার

ফল ফ্রিজের বাইরে ভালো বোধ করে: অনেককেই বাড়িতে সব রকমের ফল ফ্রিজে রাখতে দেখা যায়৷ এর ফলে ফলের নিজস্ব স্বাদ ও গন্ধ– দু’টোই হারিয়ে যায়৷ এছাড়া তাজা ফলের কচকচে ভাবটাও চলে যায় ফ্রিজের ঠান্ডায়৷ শুধু তাই নয়, কিছু কিছু ফল থেকে গ্যাস বের হয়৷ এতে করে ফ্রিজে থাকা অন্যান্য খাবারেও পচন ধরতে পারে বলে জানান জার্মান পুষ্টি বিশেষজ্ঞ আর্মিন ভালেট।

বাটা মসলা ডিপ ফ্রিজে রাখুন: বাটা মসলার গন্ধ পুরো ফ্রিজে ছড়িয়ে যায় বলে বাটা মসলা আলাদা করে ছোট পলিথিনের প্যাকেট বা ফ্রিজের জন্য তৈরি বিশেষ বক্সে ভরে ডিপ-ফ্রিজে রাখুন৷ আইস কিউবের বক্সের মধ্যে মসলা ভাগ করে রেখে সেটা পলিথিনে ঢুকিয়ে ডিপ-ফ্রিজে রাখতে পারেন। এতে ফ্রিজে গন্ধ হবে না, বরং প্রয়োজন অনুযায়ী মশলার কিউব বের করে ব্যবহার করতে পারবেন৷ বাটা মসলা কিছুটা ব্যবহারের পর দ্বিতীয়বার ডিপে রাখবেন না, এতে ব্যকটেরিয়া হবার আশঙ্কা থাকে।

ফ্রিজ পরিষ্কার: সপ্তাহে একদিন হালকাভাবে ফ্রিজ পরিষ্কার করুন৷ তবে মাসে অন্তত একটি দিন খুব ভালো করে ফ্রিজ পরিষ্কার করতে হবে। আর পরিষ্কার করার পর কিছুক্ষণ ফ্রিজের দরজা খোলা রাখুন। এতে আগের গন্ধ দূর হয়ে যাবে সহজেই। প্রয়োজনে একটি লেবু কেটে কাঁচের প্লেটে রেখে সেটা ফ্রিজের মাঝের তাকে রেখে দিন৷ দেখবেন, ফ্রিজের ভেতরে আর কোনো দুর্গন্ধ নেই।

ফ্রিজের তাপমাত্রা: ফ্রিজে রাখা খাবারের পরিমাণের ওপর নির্ভর করে ফ্রিজের টেম্পারেচার৷ তাই সেই অনুযায়ী তাপমাত্রা কমানো-বাড়ানো উচিত৷ বাজার করার পর নতুন খাবার ফ্রিজে রাখার সময় অবশ্যই ঠান্ডার মাত্রা বাড়িয়ে দেবেন, অর্থাৎ তাপমাত্রা কমিয়ে দেবেন৷ তা না হলে দেখবেন ভেতরে, মানে ফ্রিজের গায়ে বরফের কুঁচি জমে গেছে৷ আসলে ফ্রিজের প্রতি একটু যত্নবান হলে স্বাস্থ্য যেমন ভালো থাকবে, তেমনি ফ্রিজটিরও আয়ু বাড়বে।

প্রতিবেদন: নুরুননাহার সাত্তার

আরও পড়ুনঃ   কোন খাবার কতটুকু খাবেন?

ফ্রিজে খাবার সংরক্ষণের ১০টি টিপস

ফ্রিজ আমাদের দৈনন্দিন জীবনের অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি জিনিস। ফ্রিজ ছাড়া এই আধুনিক জীবনে একদিনও চলা অসম্ভব। কর্মব্যস্ততার ফাঁকে কারো পক্ষেই আজকাল সম্ভব হয়না প্রতিদিন বাজার করার। ফ্রিজ থাকাতে আমারা অনেকেই একসাথে সপ্তাহের সবজি একসাথে কিনে ফ্রিজে সংরক্ষণ করি। সাথে মাছ, মাংসতো আছেই। কিন্তু ফ্রিজে শুধু নানান রকমের খাদ্য, শাক সবজি, মাছ-মাংস সংরক্ষণ করলেই তো হবেনা, তা সংরক্ষণ করতে হবে সঠিক উপায়ে। চলুন তাহলে জেনে নিই কিছু সহজ টিপস।

১। বাজার করার পর যে সকল জিনিস ফ্রিজে রাখবেন সেগুলো আগে আলাদা ভাবে গুছিয়ে নিন। তারপর রাখুন।

২। ফ্রিজ কখনোই বারবার খোলা ও বন্ধ করা ঠিক না। বাসায় বাচ্চা থাকলে ফ্রিজ লক করে রাখুন।

৩। সপ্তাহে একদিন অবশ্যই ফ্রিজের ভিতরে সমস্ত জিনিসপত্র বের করে ফ্রিজ বন্ধ করুন, তারপর ফ্রিজ পরিষ্কার করুন।

৪। কাঁচা বাজার আসার পর মাছ-মাংস, সবজি ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করুন তারপর প্রতিদিন রান্নার হিসাব অনুযায়ী গুছিয়ে রাখুন। এঁটে ঝামেলা অনেক কমে যাবে।

৫। যে দ্রব্যগুলো আগে ব্যবহার করবেন, তা ফ্রিজের নরমাল অপশনে রাখুন। এবং পরে যেগুলো ব্যবহার করবেন সেগুলো ডিপে রাখুন। সব দ্রব্য ডিপে রাখার প্রয়োজন নেই।

৬। ফ্রিজে আমরা কাঁচা মরিচ অনেক দিন সংরক্ষন করে রাখি। এবং অনেকদিন থাকার ফলে কাঁচামরিচ নষ্টও হয়ে যায়, তাই কাঁচামরিচ আনার পর বোটা ছাড়িয়ে একটি পরিষ্কার শুকনা কাপড় দিয়ে মুছে কাচের কোন পাত্রে সংরক্ষন করুন। অনেকদিন ফ্রেশ থাকবে।

৭। ধনে পাতাও আমরা প্রায় সময়ই বেশি করে এনে রাখি। বিশেষ করে মাছের কোন রান্নায় ব্যবহার করি আমরা ধনে পাতা। তাই ধনে পাতাকেও যাতে আপনি বেশিদিন সংরক্ষণ করতে পারেন তার জন্য ধনে পাতা আনার পর গোড়া কেটে বক্স করে ফ্রিজে রাখুন ভালো থাকবে।

আরও পড়ুনঃ   যে গাছ লাগালে বাড়ি থেকে পোকামাকড় দূর হবে

৮। বিশেষ করে গরমের সময় আমরা বোতলে করে ফ্রিজে ঠাণ্ডা পানি রাখি। এই ঠাণ্ডা পানির বোতলগুলো ব্যবহার করার পর উপরের দিকটা না ধুয়েই আমরা আবার তা ভরে ফ্রিজে রাখি। এতে করে আপনার ফ্রিজে জীবাণুর আক্রমন হতে পারে। তাই বোতলের বাইরের দিকটা সবসময় ধুয়ে তারপর রাখুন।

৯। ডিম আমাদের প্রতিদিনের জনপ্রিয় খাবার। একসাথে অনেক ডিম এনে তা ফ্রিজে রাখি। কিন্তু আমরা অনেকেই ডিম সরাসরি ফ্রিজে রাখার আগে পরিষ্কার করিনা। কিন্তু ডিমের উপরের অংশে থাকে অনেক ময়লা, যা থেকে ফ্রিজে অন্য খাদ্য দ্রব্যে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমন হওয়ার সম্ভবনা থাকে। তাই ডিম আনার পর তা কিছুক্ষণ খুব হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে রাখুন তারপর ধুয়ে পানি ঝড়িয়ে ফ্রিজে রাখুন।

১০। ফ্রিজে যেকোন খাবার রাখুন না কেন সবসময় ডেকে রাখুন কিংবা বক্সে করে রাখুন খাবার ফ্রেশ থাকবে।

লিখেছেনঃ ফাতেমা খাতুন

ফ্রিজে ডিম রাখলে কি হতে পারে জানেন?

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ হেলথ নিউজ ,টিপস ,তথ্য এবং মজার মজার রেসিপি নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি হেলথ নিউজ এ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

12 + 11 =