ব্যবহৃত টি ব্যাগ দিয়ে যে ১৯ টি কাজ করা যায়

0
111
used-tea-bag

চা অপছন্দ করেন এমন মানুষ খুব কমই আছে। আর ব্যস্ত দিনের মাঝে এক কাপ চা যেন ক্লান্তি মেটায় সারা শরীরের।  সময় বাঁচাতে আজকাল আমরা অনেকেই টি-ব্যাগ দিয়ে চা বানিয়ে খাই। আর চা শেষ করে ফেলে দেই ব্যবহৃত টি-ব্যাগটি। কিন্তু আমরা জানিনা এই ব্যবহৃত টি-ব্যাগ অনেক কাজে আসতে পারে। যেমন চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল কমাতে‚ চোখের ফোলা কমাতে‚ ছোট-খাটো পোড়া সারাতে এবং মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে আপনি ব্যাবহার করতে পারেন ব্যবহৃত টি-ব্যাগ।

বিউটি ট্রিটমেন্টের পাশাপাশি আরও বহু কাজে আসতে পারে এটি। তাই জেনে রাখা ভাল ব্যবহৃত টি-ব্যাগের নানা ব্যবহার।

১. মাথা ব্যথা ও চোখের ফোলা ভাব কমায় :

ফেলে দেয়া টি-ব্যাগ পানি দিয়ে ধুয়ে ফ্রিজে রেখে ঠাণ্ডা করে নিন। মাথা ব্যথা করলে কিংবা চোখ ফুলে উঠলে ঠাণ্ডা টি-ব্যাগটি চোখের উপর রেখে শুয়ে থাকুন। এতে ক্লান্ত ভাব দূর হয়ে যাবে।

২. ত্বকের পোড়া দাগ দূর করা : ত্বকের পোড়া দাগ দূর করার জন্য অনেকগুলো ব্যবহৃত টি-ব্যাগ বাথটাব কিংবা বালতির গোসলের পানিতে ১ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। সেই পানি নিয়মিত গোসলের পর গায়ে ঢাললে পোড়া দাগ দূর হয়ে যাবে।

৩. চুলের যত্নে : চুলের কন্ডিশনার হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে টি-ব্যাগ। সামান্য গরম পানিতে টি-ব্যাগ ভিজিয়ে, শ্যাম্পু করার পর মাথায় দিন। এতে চুল থাকবে ঝলমলে ও উজ্জ্বল।

৪.সার হিসেবে:

টি-ব্যাগের চা পাতা ফুলের টবে কিংবা গাছের গোড়ায় দিন। জৈবিক সার হিসেবে দারুণ কাজ করবে এটি।   ৫.দুর্গন্ধ রোধে:

হাতে পিঁয়াজ বা রসুনের গন্ধ হলে টি-ব্যাগ ঘষুন। জুতার বাজে গন্ধ দূর করার জন্য টি-ব্যাগ জুতার ভিতরে রাখুন। এতে দুর্গন্ধ নিমিষেই চলে যাবে।

৬.তৈলাক্তভাব দূর করতে: গ্লাস, প্লেট বা হাঁড়ি-পাতিল থেকে তেল চিটচিটে ভাব দূর করতে, গরম পানিতে টি-ব্যাগ দিয়ে সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। সকালে উঠে দেখবেন তৈলাক্তভাব কেটে গেছে।

আরও পড়ুনঃ   চাল ধোওয়া পানি অথবা ভাতের মাড় কখনো ফেলবেন না, কারণ তা অবিশ্বাস্য কাজের!

৭.মাংস নরম করতে
চা পাতায় ট্যানিন থাকে যা মাংস নরম করে। কালো চা পাতায় কিছুক্ষণ যদি মাংস ম্যারিনেট করে রাখা হয় তা সহজেই সেদ্ধ হয়ে যায়। এছাড়াও সুন্দর ফ্লেভার ও যোগ করে। চারটি টি ব্যাগ থেকে চা পাতা বের করে নিয়ে তা পানি দিয়ে ফুটিয়ে ছেঁকে নিন। এরপর মাংস ম্যারিনেট করুন এবং দু ঘন্টা রেখে রান্না করুন।

৮.ফ্রিজের দুর্গন্ধ দূর করে
লেফট ওভার খাবার বা শাকসব্জি বহু দিন থাকলে ফ্রিজ থেকে দুর্গন্ধ বের হয়। এই গন্ধ দূর করতে কয়েকটা ব্যবহৃত টি -ব্যাগ ফিজে রেখে দিন। দেখবেন নিমেষেই গন্ধ চলে যাবে।

৯. গাছে সার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন
চায়ের মধ্যে বহু রকমের নিউট্রিয়েন্টস এবং ট্যানিক অ্যাসিড থাকে যা মাটির কোয়ালিটি বৃদ্ধি করে। এছাড়াও অক্সিডাইজেশনে সাহায্য করে। এর ফলে গাছের বৃদ্ধি ভালো হয়।

 ১০. ওটস আর শষ্য দানায় ফ্লেভার যুক্ত করে
আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা দুধ দিয়ে ফুটিয়ে ওটস বা শষ্য দানা খেতে ভালোবাসেন। দুধ দিয়ে ফোটানোর সময় একটা ব্যবহৃত টি ব্যাগ দুধে ফেলে দিন। এতে সুন্দর গন্ধ বেরোবে এবং একই সঙ্গে এই নতুন যোগ শরীরের উন্নতি ঘটাতে সাহায্য করবে।

 ১১. থালা বাসনের তেলতেলে ভাব দূর করে
নোংরা বাসন থেকে তেলতেলে ভাব দূর করতে টি ব্যাগের জুড়ি নেই। এর জন্য নোংরা বাসনের সঙ্গে কয়েকটা টি ব্যাগ জলে ভিজিয়ে রাখুন। এছাড়াও বাসন থেকে সব রকমের গন্ধও চলে যাবে।

১২.  বাতাসকে শুদ্ধ করে 
চায়ের মধ্যে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান আছে। তাই বাতাস শুদ্ধ রাখতে টি ব্যাগ ব্যবহার করুন। কয়েকটা টি ব্যাগ ভালো করে রোদে শুকিয়ে নিন। এর মধ্যে আপনার প্রিয় এসেনসিয়াল অয়েল কয়েক ফোঁটা মিশিয়ে বাথরুমে‚ রান্নাঘরে বা যেখানে আপনার ইচ্ছা রাখতে পারেন।

১৩.  মশা বা পোকা দূর করে
ব্যবহৃত টি ব্যাগ‚ বিশেষত তা যদি মিন্ট টি হয় তাহলে এটা প্রাকৃতিক রেপেল্যান্টের কাজ করে। মশা‚ আরশোলা‚ পিঁপড়ে‚ মাকড়সা বাড়ি থেকে তাড়াতে ব্যবহৃত টি ব্যাগের সাহায্য নিন।

আরও পড়ুনঃ   জলপাই তেলের ২০ ব্যবহার জেনে নিন

 ১৪. লেদারের জুতো পরিষ্কার করতে 
দামি লেদারের জুতো পরিষ্কার আর দুর্গন্ধ্য মুক্ত রাখতে টি ব্যাগের সাহায্য নিতে পারেন। একটা ভিজে টি ব্যাগ জুতোর ওপর ভালো করে ঘষতে হবে। এরপর পরিষ্কার শুকনো কাপড় দিয়ে জুতো মুছে নিন। তারপর শু পলিশ লাগান।

১৫.আয়না‚ কাচ ও কাঠের জিনিস চকচকে করে 
আয়না থেকে গ্রিজ বা কাঠের ফার্নিচার চকচকে করা সবই নিমেষের মধ্যে হয়ে যায় টি ব্যাগ দিয়ে। একটা ব্যবহৃত ভিজে টি ব্যাগ আয়না বা কাঠের ফার্চিচারের ওপর ঘষুন। দেখবেন নিমেষে চকচকে হয়ে উঠবে।

১৬.বাসনকে রাস্ট ফ্রি করে
অনেক সময় কাঁচি‚ ছুরি বা বাসনে জং ধরে যায়। এই সমস্যা দূর করতে বেশ কয়েকটা ব্যবহৃত টি ব্যাগ একটা বড় পাত্রে জল দিয়ে ফোটান। ফুটন্ত জলে এবার মরচে ধরা সমগ্রী দিয়ে বেশ খানিক্ষণ ফুটিয়ে নিন। দেখবেন একদম নতুনের মত চক চক করছে।

১৭.দাঁতের যত্নে
দাঁতের অসহ্য যন্ত্রণা কিংবা মাড়ির রক্তপাত কমাতে ব্যবহার করতে পারেন টি-ব্যাগ। ব্যথা বেশি হলে অবশ্যই ডেনটিস্টের কাছে যাবেন। তবে সাময়িক যন্ত্রণা উপশমে সাহায্য করবে ঠাণ্ডা টি-ব্যাগ।

১৮.পোকার কামড় বা ক্ষত অংশে

পোকার কামড় থেকে হওয়া ক্ষত, র‌্যাশ, চুলকুনি কমাতে সাহায্য করবে টি-ব্যাগ। কাটা স্থানে ঠাণ্ডা টি-ব্যাগ চেপে ধরুন। বিশেষ করে ছেলেদের শেভ করার সময় গাল কেটে যায়, তখন এটা ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া পোকার কামড়, র্যা শ বা চুলকানির অংশে টি-ব্যাগ রাখলে আরাম পাওয়া যায়।

১৯.পায়ের দুর্গন্ধ দূর করতে
অনেকের পায়ে দুর্গন্ধ হয়ে থাকে, যা খুবই অস্বস্তিকর। এই সমস্যা দূর করতে ব্যবহার করা টি ব্যাগ পানিতে ফুটিয়ে নিন, সেটি ঠান্ডা করে তাতে পা ভিজিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। দেখবেন পায়ের দুর্গন্ধের সমস্যা সমাধান হয়ে গেছে।

গ্রিন টি কেন খাবেন ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

five × 2 =