মাড়ি থেকে রক্তপাত বন্ধ করুন ৬টি ঘরোয়া উপায়ে

0
671
মাড়ি থেকে রক্তপাত

দাঁতের মাড়ি থেকে রক্ত পড়া খুব সাধারণ একটি সমস্যা। ছোট বড় প্রায় সবার এই সমস্যা দেখা যায়। দাঁত ব্রাশ করার সময় যদি মাড়ি থেকে রক্ত বের হয়, সেটি সাধারণত জিনজিভাইটিসের কারণে হয়ে থাকে। মাড়ি থেকে রক্ত পড়া ঘরোয়া কিছু উপায়ে রোধ করা সম্ভব। তবে এটি যদি দীর্ঘদিন ধরে চলে, তবে অব্যশই ডেন্টিস্টের পরামর্শ নেওয়া উচিত। ঘরোয়াভাবে দাঁতের মাড়ির রক্ত বন্ধ করার উপায়গুলো জেনে নেওয়া যাক।

১। লবঙ্গের তেল
আঙ্গুলে লবঙ্গের তেল নিয়ে দাঁতে মাড়িতে ম্যাসাজ করুন। এছাড়া কয়েকটি লবঙ্গ চিবিয়ে খান। লবঙ্গ মাড়ির ইনফ্লামেশন দূর করে, মাড়ি শিরশির ভাব দূর করে দেয়। যা রক্তপাত বন্ধ করে।

২। অ্যালোভেরা জেল
অ্যালোভেরা জেল দিয়ে কমপক্ষে আধা ঘণ্টা ম্যাসাজ করুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি দিনে একবার করুন। এছাড়া অ্যালোভেরা জেলের জুস মুখে নিয়ে কুলকুচি করুন। এছাড়া প্রতিদিন দুই চা চামচ অ্যালোভেরা জুস পান করুন। অ্যালভেরার অ্যান্টি ইনফ্লামেটরী উপাদান মাড়ির রক্তপাত বন্ধ করে দেবে।

৩। তিলের তেল
এক টেবিল চামচ তিলের তেল মুখে নিয়ে সম্পূর্ণ দাঁতে ম্যাসাজ করুন। এটি ১৫ মিনিট করুন। তারপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি প্রতিদিন করে একমাস ব্যবহার করুন। তিলের তেল আয়ুবের্দিক একটি দাঁতের মাড়ির রক্ত বন্ধ করার জন্য।

৪। লেবু পানি
এক গ্লাস পানিতে অর্ধেকটা লেবুর রস দিয়ে দিন। এটি দিয়ে কুলকুচি করুন খাবার খাওয়ার পর। এটি দাঁত থেকে রক্তপাত পড়া দ্রুত বন্ধ করে দেয়।

৫। টি ট্রি অয়েল
২০০৮ সালে Australian Dental Journal এর মতে টি ট্রি অয়েল দাঁতের রক্ত পড়া বন্ধ করতে বেশ কার্যকর। দাঁত ব্রাশ করার সময় টুথপেস্টে কয়েক ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মিশিয়ে ব্যবহার করুন। এইভাবে দিনে দুইবার দাঁত ব্রাশ করুন। এছাড়া টি ট্রি অয়েল সমৃদ্ধ টুথপেস্ট ব্যবহার করুন।

আরও পড়ুনঃ   মানবদেহে আর্সেনিকের বিষাক্ততা

৬। হেনা মাউথ ওয়াশ
৫০০ মিলিলিটার পানিতে এক মুঠো হেনা পাতা দিয়ে জ্বাল দিন। ঠান্ডা হলে এটি দিয়ে কুলকুচি করুন। প্রতিদিন খাওয়ার পর দুইবার এটি ব্যবহার করুন। নিয়মিত ব্যবহারে এটি মাড়ির রক্তপাত বন্ধ করে দেবে।

-নিগার আলম

আরও কিছু তথ্য আপনার জন্য শেয়ার করা হল-

দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা না বোঝাটা শুধু আপনার একার ভুল নয়। আমরা সবাই কম বেশি এই দোষে দোষী। যতক্ষন দাঁত ভাল থাকে, তার যত্ন বা নিরাপত্তার কথা মাথায় আসে না। দাঁতের প্রতি তোড়জোড় তখনই শুরু হয় যখন মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে, দাঁতে ব্যথা অথবা কোনো গুরুতর সমস্যা হয়। মাড়িতে প্রদাহ হলে তাকে জিঞ্জিভাইটিস (Gingivitis) বলে। এর ফলে মাড়ি লাল হয়ে যায়, মাড়িতে ব্যথা হয় বা মাড়িতে ক্ষত সৃষ্টি হয় এবং মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে। বিভিন্ন কারণে এই সমস্যাটি হতে পারে। মাড়ি দুর্বল হয়ে গেলে ব্রাশ বা ফ্লস করার সময় মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে । এর সাথে সাথে মাড়ির টিস্যু ফুলেও যেতে পারে। দাঁতে ময়লা জমলে জিঞ্জিভাইটিস বা মাড়ির প্রদাহ হয়।

মাড়ি থেকে রক্ত পড়ার কারণ কী?

  • মাড়িতে কোন রোগ হলে।
  • টুথ ডিজঅর্ডার বা দাঁতের গঠনে সমস্যা থাকলে।
  • হাইপোভলেমিয়া বা রক্ত সঞ্চালনের মাত্রা কমে গেলে।
  • দাঁত ভেঙে গেলে।
  • দাঁতে ফোঁড়া বা ঘা হওয়া।
  • করোনারি অ্যাথেরোস্কেলেরোসিস হলে।
  • হেমোফিলিয়া হলে।
  • চোয়ালে ফ্র্যাকচার হলে।
  • কোন কোন বিষয়গুলো মাড়ি থেকে রক্ত পড়ার প্রবণতা বৃদ্ধি করতে পারে?
  • নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার না করলে।
  • টোবাকো বা তামাকের ব্যবহার।
  • ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হলে।
  • বয়স বৃদ্ধি পেলে।
  • লিউকেমিয়া, এইচ-আই-ভি বা এইডস এর কারণে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে।
  • নির্দিষ্ট কিছু ঔষধের কারণে।
  • ভাইরাল এবং ফাঙ্গাল ইনফেকশনের কারণে।
  • মুখ শুষ্ক হয়ে গেলে।
  • হরমোনগত পরিবর্তন, যেমন- গর্ভাবস্থা, মাসিক চক্র বা জন্মবিরতিকরণ পিলের ব্যবহার।
  • পুষ্টিহীনতায় ভুগলে।
  • মাদকদ্রব্য সেবন করলে।
  • দাঁতের গঠনে সমস্যা হলে।
আরও পড়ুনঃ   বাতজ্বর নিয়ে যত বিভ্রান্তি

ব্লিচিং–এর কারণে কি মাড়ি থেকে রক্ত পড়তে পারে?

হ্যাঁ। যে রাসায়নিক পদার্থ দাঁত সাদা করার জন্য ব্যবহৃত হয়, তা মাড়িতে লাগলে সেখানে ক্ষত সৃষ্টি হয়; ফলে মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে।

অতিরিক্ত ভিটামিন বি ১২ এর কারণে কি মাড়ি থেকে রক্ত পড়তে পারে?

অতিরিক্ত ভিটামিন বি ১২ এর কারণে মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে না। তবে এর কারণে হাত-পা অবশ হয়ে যায় এবং শিরশির করতে থাকে।

মাড়ি থেকে রক্ত পড়ার সমাধান কী?

  • নরম টুথব্রাশ ব্যবহার এবং তা তিন-চার মাস পর পর পরিবর্তন করা উচিৎ।
  • প্লাক ও দাঁতের ময়লা পরিষ্কার করতে হবে।
  • দিনে অন্তত দুইবার ও খাবার পর দাঁত মাজা উচিৎ।
  • দিনে অন্তত একবার ফ্লস করা উচিৎ।
  • চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী অ্যান্টিসেপ্টিক মাউথওয়াশ ব্যবহার করা উচিৎ। এছাড়াও-

লবঙ্গ
সামান্য পরিমাণ লং বা লবঙ্গের তেল মাড়িতে লাগান অথবা ১-২ টি লবঙ্গ চিবাতে থাকেন। প্রথমে কিছুক্ষণ জ্বালাপোড়া সৃষ্টি হবে কিন্তু এভাবে করতে থাকলে মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যাবে।
অ্যালোভেরা
অ্যালোভেরার ভেতরের নরম শাঁস নিয়ে মাড়িতে মাসাজ করুন। কিছুক্ষণ রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে অনেক উপকার পাবেন। অল্প সমস্যা থাকলে অ্যালোভেরার জুস পান করলেও উপকার পাবেন।
তাজা ফল ও শাকসবজি
ভিটামিন, মিনারেল এবং ক্যালরিতে ভরপুর তাজা ফল ও শাকসবজি শুধু শরীর নয় মাড়ির জন্যও খুবই উপকারী। কাঁচা সবজি চিবিয়ে খেলে মাড়িতে রক্ত সঞ্চালনের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফলে মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া কমে যায়।
লবণ পানি দিয়ে গার্গল করা
হালকা গরম পানিতে সামান্য পরিমাণ লবণ মিশিয়ে গার্গল করুন। উপকার পাবেন। লবণ পানির পরিবর্তে স্যালাইন ব্যবহার করতে পারেন।
ভিটামিন সি যুক্ত খাবার
ভিটামিন সি মাড়ি মজবুত করে এবং রক্ত পড়া বন্ধ করতে সাহায্য করে। তাই বেশি বেশি ভিটামিন সি যুক্ত খাবার খাওয়া ভাল। লেবু, কমলালেবু, শাকসবজি (ব্রকলি, বাঁধাকপি) ইত্যাদি খাবারে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন সি পাওয়া যায়।
দুধ
মাড়ি মজবুত করতে নিয়মিত ক্যালসিয়াম প্রয়োজন হয়। দুধ ক্যালসিয়ামের একটি উৎকৃষ্ট উৎস। নিয়মিত দুধ পান করলে মাড়ি মজবুত হয় এবং মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া বন্ধ হয়।
বেকিং সোডা
আঙ্গুল দিয়ে বেকিং সোডা মুখের ভেতরে মাসাজ করলে মুখের ভেতরে অম্লীয় ভাব সৃষ্টি হয়; ফলে মুখের ভেতরের ব্যাকটেরিয়াগুলো ধ্বংস হয়ে যায় এবং মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া কমে যায়।
মাসাজ
হাতের আঙ্গুল দিয়ে মুখের উপর থেকে মাড়িতে আলতোভাবে মাসাজ করতে পারেন। এতে মাড়িতে রক্তসঞ্চালনের পরিমাণ বৃদ্ধি পায় এবং মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়া কমে যায়।
ফ্যাটযুক্ত খাবার খাবেন না
অতিরিক্ত ফ্যাট ও মসলাযুক্ত খাবার দাঁতে ক্যাভিটি বা ক্ষতের সৃষ্টি করে এবং মুখের ভেতরের ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়ার খাবার যোগান দেয়। তাই এই ধরণের খাবার বর্জন করুন।

আরও পড়ুনঃ   বাড়ির ব্যবস্থাপনায়ই চিকুনগুনিয়া নিরাময় সম্ভব!!!

বিঃ দ্রঃ গুরুত্বপূর্ণ হেলথ নিউজ ,টিপস ,তথ্য এবং মজার মজার রেসিপি নিয়মিত আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি হেলথ নিউজ এ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

thirteen − 8 =