রক্তচাপের অস্বাভাবিক ওঠানামা

0
101
রক্তচাপের অস্বাভাবিক ওঠানামা

দিনের বিভিন্ন সময়, দৈনন্দিন কাজকর্ম, খাওয়া-ঘুম-বিশ্রাম ও কিছু অভ্যাসের সঙ্গে আমাদের রক্তচাপের মাত্রা ওঠানামা করতে পারে। মধ্যরাতে ঘুমের মধ্যে রক্তচাপ সবচেয়ে কম থাকে, বাড়তে শুরু করে সকালবেলা। দুপুর, বিকেলে সর্বোচ্চ মাত্রায় পৌঁছায় আবার সন্ধ্যা থেকে কমতে শুরু করে। এই ওঠানামার একটা নির্দিষ্ট মাত্রা আছে, যা সিস্টোলিক ১০-১৫ মিমি পারদ বা ডায়াস্টোলিক ৫-১০ মিমি পারদের বেশি কখনোই নয়। আসুন জেনে নিই, কোন কোন ক্ষেত্রে রক্তচাপের অস্বাভাবিক ওঠানামা হতে পারে:
 সবচেয়ে সাধারণ কারণ হলো রক্তচাপের ওষুধ অনিয়মিত বা যখন-তখন সেবন করা। এ ছাড়া হঠাৎ করে স্টেরয়েড, ব্যথানাশক, জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি ইত্যাদি সেবন করলে রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে।
 অতিরিক্ত লবণ ও লবণাক্ত খাবার বেশি খেয়ে ফেললে রক্তচাপ বেড়ে যেতে পারে।
 আকস্মিক মানসিক উত্তেজনা, উদ্বেগ, নির্ঘুম রক্তচাপ বাড়িয়ে দিতে পারে।
 অত্যধিক চা, কফি, ধূমপান, মাদকদ্রব্য রক্তচাপের ওপর প্রভাব ফেলে।
 গর্ভকালীন অবস্থায় কারও রক্তচাপ বাড়তে পারে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এটা সাময়িক। আবার গর্ভকালীন প্রথম পাঁচ মাস রক্তচাপ একটু কম থাকা স্বাভাবিক। বয়স্ক ব্যক্তি, রোগে ভোগা মানুষ, বমির পর ডায়রিয়া, বিশ্রামের ঘাটতি, অনিদ্রা, পানিশূন্যতার কারণে রক্তচাপ কমে যেতে পারে।
 কারও কারও চিকিৎসকের কাছে গেলেই রক্তচাপ অন্য রকম পাওয়া যায়। একে হোয়াইট কোট হাইপারটেনশন বলে। আবার অনেকে বাড়িতে ভুল পদ্ধতিতে রক্তচাপ মাপেন, ফলে বিভ্রান্ত হন।
 ডায়াবেটিক রোগীদের বসা বা শোয়া থেকে উঠে দাঁড়ালে রক্তচাপ আকস্মিক কমে যেতে পারে ও মাথা ঘোরে।

কী করবেন?
রক্তচাপ খুব বেশি ওঠানামা করছে মনে হলে নিয়মিত বিরতিতে রক্তচাপ মেপে এক সপ্তাহের একটা তালিকা তৈরি করুন। দিনের বিভিন্ন সময় সঠিক পদ্ধতিতে সঠিক একটি যন্ত্র দিয়ে মাপুন।
সিস্টোলিক রক্তচাপ ১০-১৫ মিমি ও ডায়াস্টোলিক ৫-১০ মিমির বেশি ওঠানামা করলে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন। প্রয়োজনে চিকিৎসক ২৪ ঘণ্টা টানা রক্তচাপ মাপার যন্ত্র ব্যবহার করে নিশ্চিত হবেন।
 চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কখনোই (৯০/৬০-এর নিচে নামা ছাড়া) হঠাৎ করে ওষুধ বন্ধ করে দেবেন না। রক্তচাপ কমের দিকে থাকলে ওষুধের মাত্রা পরিবর্তন বা ওষুধ পরিবর্তনের জন্য চিকিৎসকের সাহায্য নিন।
 ঘুম, বিশ্রাম, খাবার ও ব্যায়ামের ক্ষেত্রে নিয়ম মেনে চলুন। অতিরিক্ত চা, কফি এড়িয়ে চলুন। হাঁটা বা ব্যায়ামের অন্তত আধা ঘণ্টা পর বিশ্রাম নিয়ে রক্তচাপ মাপবেন। সন্দেহের বশবর্তী হয়ে বারবার যন্ত্র দিয়ে রক্তচাপ মাপবেন না, এতে টেনশন আরও বাড়বে।
হৃদ্রোগ বিশেষজ্ঞ, জাতীয় হৃদ্রোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল

আরও পড়ুনঃ   অচেতন রোগী ঘরে, কি করি তার তরে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

nineteen + fifteen =