রান্না ছাড়াও লবণের স্বাস্থ্যকর ১১টি ব্যবহার!

0
113
লবণের ব্যবহার

লবণ ছাড়া যেকোনো প্রকার রান্নাই অসম্ভব। লবণের রয়েছে অনেক গুণ। লবণ না থাকলে উত্তম স্বাদযুক্ত খাবার আশা করাই যেত না। তাই রান্নায় লবণের কোনো বিকল্প নেই। জেনে নিন লবণের অজানা কিছু ব্যবহার-

১.গলা ব্যথা কমাতে

ঠান্ডা, শুষ্ক বাতাস, খুব বেশি চিৎকার-চেঁচামেচি অথবা গলায় সংক্রমণ ইত্যাদির কারণে গলা ব্যথা হতে পারে। হালকা গরম পানির মধ্যে লবণ দিয়ে গার্গল করলে এগুলো থেকে কিছুটা পরিত্রাণ পাওয়া যায়। লবণ এখানে অ্যান্টিসেপটিকের কাজ করে এবং গলার সংক্রমণের সঙ্গে লড়াই করে।

  • এক কাপ হালকা গরম পানিতে ১/২ চা চামচ লবণ দিন।
  • ভালোভাবে মেশান।
  • কয়েক সেকেন্ড এই পানি দিয়ে গার্গল করুন।
  • কয়েক দিন এটি করুন।

২.পায়ে ব্যথা

পায়ে ব্যথা হলে হাঁটা একটু কঠিন হয়ে পড়ে। হাঁটু, গোড়ালি ইত্যাদিতে ব্যথা হলে লবণ দিয়ে প্রশমিত করা যায়।

  • একটি বড় গামলা বা বোলের মধ্যে হালকা গরম পানির মধ্যে নিন। এর মধ্যে এক কাপ লবণ দিন।
  • এর মধ্যে ১০ থেকে ১৫ মিনিট পা ভিজিয়ে রাখুন।
  • এরপর পা মুছে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করুন।
  •  প্রতিদিন এটি করুন।

৩.প্রাকৃতিক টুথপেস্ট

টুথপেস্টের বিকল্প হিসেবে কখনো কখনো লবণ ব্যবহার করতে পারেন। এটি ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধেও কাজ করে। এটি দাঁতের প্লাক তৈরি কমায় এবং দাঁতের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে।

  • টুথব্রাশের মধ্যে লবণ নিন। এটি দিয়ে দাঁত মাজুন। প্রতিদিন এভাবে দাঁত মাজুন।
  • এ ছাড়া সমপরিমাণ লবণ ও বেকিং সোডা মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ  করতে পারেন। তবে দাঁত ব্রাশের সময় বেশি ঘষাঘষি করবেন না। এতে মাড়ি ও দাঁতের অ্যানামেল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

৪.ফোলা চোখ

রাত জাগা বা দীর্ঘ সময়ের কান্নার পর চোখ ফুলে যায়। লবণ দিয়ে এর সমাধান করা যায়।

  • একটি বোলের মধ্যে হালকা গরম পানি নিন। এর মধ্যে আধা চা চামচ লবণ দিন।
  • একটু তুলার বলকে এর মধ্যে ভেজান।
  • চোখ ব্ন্ধ করে চোখের চারপাশে, পাপড়িতে তুলার বল দিয়ে আস্তে আস্তে চাপ দিন।
  • ১৫ থেকে ২০ মিনিট এটি করুন।
আরও পড়ুনঃ   টমেটো দিয়ে স্পাইসি পাস্তা

আরো ৭টি চমৎকার ব্যবহার নিম্নরুপঃ

১. রান্নার সময় যদি গায়ে গরম তেল ছিটকে পড়ে সঙ্গে সঙ্গে লবণ লাগিয়ে দিন। ফোসকা পড়বে না।

. ফ্রিজ অনেক সময় গন্ধ হয়ে যায়। তাই লবণ ও লেবু রেখে দিন অথবা লবণ ও সোডা মেশানো পানি দিয়ে ফ্রিজ মুছে নিন।
. রঙিণ কাপড় ধোয়ার সময় সাবান-পানিতে অল্প লবণ মিশিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। কাপড়ের রঙ ভালো থাকবে।
. চা বা কফির সঙ্গে এক চিমটি লবণ মিশিয়ে নিন। এতে কফি বা চায়ের স্বাদ বাড়বে।
. শাক-সবজি ধোয়ার সময় পানিতে অল্প লবণ মিশিয়ে নিন। এতে সবজির গুণ নষ্ট হবে না এবং খুব সহজেই পরিষ্কার হবে।
৬. পাটিসাপটা পিঠা বানানোর সময় প্যানে পিঠা আটকে যায়। তাই প্যানে আগে অল্প পরিমাণে লবণ ঘষে নিন। দেখবেন পিঠা আটকাবে না।
৭. মাছের আঁশ ছাড়ানোর সময় অনেক ঝামেলা মনে হয়। তাই আঁশ ছাড়ানোর আগে লবণ-পানিতে মাছ ডুবিয়ে নিন। আঁশ ছাড়ানো সহজ হবে।

আরও পড়ুনঃ লবণের ১৮টি বিকল্প ব্যবহার জেনে নিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

3 × four =