শিশুর পেটে গ্যাস হবার কারণ ও নিরাময়ের উপায়

0
শিশুর পেটে গ্যাস

অনেক সময় কোনো কারণ ছাড়া বাচ্চাদের কান্না করতে দেখা যায়। নবজাতক শিশুদের খাওয়ালে কিংবা কোলে নিয়ে হাঁটলেও তাদের কান্না থামানো যায় না। মূলত পেটে গ্যাস জমে থাকার কারণে তাদের হতে পারে এই সমস্যা।

চলুন জেনে নেই এই গ্যাস হওয়ার কারণ, বোঝার উপায় এবং নিরাময় পদ্ধতি-

কারণ :

• ভুল পদ্ধতিতে খাওয়ানো বা বদহজমের কারণে বাচ্চার পেটে গ্যাস হতে পারে।

• নবজাতক শিশুদের বুকের দুধ খাওয়ানোর সময় মুখে বাতাস ঢুকে পেটে যেয়ে জমে গ্যাস হয়।

• মায়ের দুধের ভেতর লেকটোস জাতীয় একটি পদার্থের কারণে গ্যাস তৈরি হয়।

• ৬-৭ মাস বয়সী বাচ্চাদের দুধের পাশাপাশি বাড়তি খাবারের কারণে গ্যাস হতে পারে।

• বাচ্চাদের প্রয়োজনের তুলনায় জোর করে খাওয়ালে এই সমস্যা দেখা দেয়।
বোঝার উপায় :

• পেট ফেঁপে উঠলে

• অস্বস্তি কারণে কান্না করলে

• পেট শক্ত হয়ে গেলে

• ঢেকুর তুললে
নিরাময় পদ্ধতি :

দুধ খাওয়ানোর সময় শিশুর মাথা ওপরের দিকে ধরে রাখুন।

কান্না করলে আপনার নবজাতক শিশুকে দৃঢ়ভাবে কাপড়ে জড়িয়ে ধরুন। এই উষ্ণতায় সে আরামদায়ক অনুভব করবে।

শিশুকে কোলে নিয়ে ধীরে ধীরে দোলাতে থাকুন।

গোসলের আগে প্রতিবার শিশুর শরীর ভালোভাবে তেল দিয়ে মালিস করুন। এতে শিশুর শরীরের রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে এবং গ্যাস জমতে দিবে না।

পেটে গ্যাস জমেছে বুঝতে পারলে তাকে খাটে শুইয়ে ব্যায়াম করান। তার দুই পা ধরে পেটের কাছে নিয়ে কিছুক্ষণ ধরে রাখুন যাতে পেটে চাপ পরে। আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনুন। এছাড়া এয়ার সাইক্লিং করাতে পারেন। এভাবে ব্যায়াম করালে তাদের পেটে চাপ পরবে এবং জমে থাকা গ্যাস বের হয়ে যায়।

শিশুকে দুধ বা বাড়তি খাবার খাওয়ানোর পর তাকে ঘাড়ে কাত করে নিয়ে ঢেকুর তুলন।

অতিরিক্ত কান্না করলে, বমি করলে বা রক্তপাত হলে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া শিশুকে কোনো ওষুধ দিবেন না।

আরও পড়ুনঃ   শিশুদের আঙুল চোষা কি ভাল অভ্যাস? গবেষকরা কী বলছেন ?

শীতকালে ঠাণ্ডায় শিশুর নাক বন্ধ ও শ্বাসকষ্ট

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

10 + 2 =