শুষ্ক ও রুক্ষ কনুইয়ের ত্বকের যত্নে যা ব্যবহার করবেন

0
dry elbow

বেশকিছু দিন আগেই শীতকাল চলে আসলেও শীতের প্রকোপ বোঝা যাচ্ছে এই কয়দিন ধরে মাত্র। শীতকাল এলেই অনেকের শুষ্ক কনুইয়ের সমস্যা দেখা দিতে শুরু করে। এটা খুবই সাধারণ ও বিরক্তিকর একটি সমস্যা। কনুইয়ের অংশে শুষ্কভাব বেশী দেখা দিলে অনেক সময় চুলকানির প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়ে থাকে। শরীরের অন্যান্য অংশের তুলনায় কনুইয়ের অংশের ত্বক বেশ পাতলা হয়ে থাকে এবং তৈলগ্রন্থি অনেক কম থাকে। শীতকালীন সময়ে বাইরের শুষ্ক আবহাওয়া ত্বকের কোমলতা নষ্ট করে ফেলে বলে ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠে। এছাড়াও, শরীরের অন্যান্য অংশের ত্বকের তুলনায় কনুইয়ের অংশ সবসময় বেশ শুষ্ক থাকে।

কনুইয়ের ত্বক শুষ্ক হয়ে ওঠার আবহাওয়াগত কারণ ছাড়াও থাকে আরও নানান কারণ। অতিরিক্ত রোদের তাপ, বেশি সময় নিয়ে গোসল করার জন্যেও এমনটা হয়ে থাকে। অনেক সময় শারীরিক কোন সমস্যার জন্যেও এমনটা হয়। ডায়বেটিস অথবা একজিমা থাকলে কনুইয়ের ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে ওঠে। তবে যে কারণেই কনুইয়ের ত্বক শুষ্ক হয়ে উঠুক না কেন, সহজ কিছু পরিচর্যার মাধ্যমে কনুইয়ের ত্বকের শুষ্কভাব দূর করা সম্ভব হবে।

এক্সফলিয়েট

শুষ্ক ও রুক্ষ কনুইয়ের সমস্যা থেকে রেহাই পেতে চাইলে একদম প্রথম ও গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হলো ত্বক এক্সফলিয়েট করা। এক্সফলিয়েট করার ফলে ত্বকের মরা চামড়া উঠে যায় এবং নতুন সুস্থ চামড়া আলো-বাতাস পায়। এতে করে ত্বকের রং ফিরে আসে। এক্সফলিয়েট করার জন্য উপযুক্ত হলো গোসলের সময়। কারণ এই সময়ে ত্বক নরম ও আর্দ্র থাকে। এক্সফলিয়েট করার জন্য পিউমিস পাথর বা লুফাহ ব্যবহার করা যেতে পারে।

এক্সফলিয়েট করার পরে কনুইয়ের অংশ ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিয়ে এরপর এতে অলিভ অয়েল দিয়ে ম্যাসাজ করতে হবে।

পেট্রোলিয়াম জেলী

সকলের বাসাতে যে জিনিসটি পাওয়া যাবে সেটা হলো পেট্রোলিয়াম জেলী। কনুইয়ের শুষ্কভাব দূর করতে, চুলকানির প্রাদুর্ভাব কমাতে এই উপাদানটি সবচাইতে উপকারী। পেট্রোলিয়াম জেলী শুষ্ক ত্বকে আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতে এবং ত্বককে নরম করতে সাহায্য করে থাকে।

আরও পড়ুনঃ   সুন্দর চেহারা পেতে চান? এই ১১টি জিনিস ভুলেও মুখে লাগাবেন না!

পেট্রোলিয়াম জেলী যেকোন সময়েই ব্যবহার করা যায়। তবে সঠিক নিয়ম মেনে ব্যবহারে এর কার্যকারীতা বৃদ্ধি পায়। রাতে ঘুমাতে যাবার আগে কুসুম গরম পানিতে ভালোভাবে কনুই ধুয়ে নিতে হবে। এরপর দুই কনুইয়ে ভালোভাবে পেট্রোলিয়াম জেলী মাখাতে হবে। কোন নরম কাপড় এর সাহায্যে দুই কনুইকে ভালোভাবে মুড়িয়ে ঢেকে নিতে হবে। সারারাত এইভাবে রাখার পরে সকালে কুসুম গরম পানির সাহায্যে কনুই ধুয়ে নিতে হবে।

নারিকেল তেল

নারিকেল তেল হলো এমন একটি প্রাকৃতিক উপাদান, যেটাতে রয়েছে সর্বোচ্চ ময়েশ্চারাইজার। শুধুমাত্র শুষ্ক ও রুক্ষ কনুইয়ের জন্য নয়, শরীরের যেকোন অংশের ত্বকের জন্যেই নারিকেল তেল উপকারী উপাদান। এতে থাকা ভিটামিন-ই শুষ্কভাব কমাতে এবং ত্বকের রং উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে থাকে। নারিকেল তেল ব্যবহারের জন্য কনুইয়ের শুষ্ক অংশে নারিকেল তেল মাখিয়ে ঘণ্টাখানেকের জন্য রেখে দিতে হবে। এরপর কুসুম গরম পানিতে কনুই ভালোমতো ধুয়ে নিতে হবে।

অলিভ অয়েল ও ব্রাউন সুগার

অলিভ অয়েল এবং ব্রাউন সুগারের মিশ্রণ শুষ্ক ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। চিনি গুঁড়ো ত্বকের স্ক্রাবের মতো কাজ করে থাকে। এই মিশ্রণে চিনি স্ক্রাবের মতো কাজ করলেও অলিভ অয়েল ময়েশাচারাইজার হিসেবে কাজ করে থাকে।

মিশ্রণ তৈরি করতে এক কাপের এক-চতুর্থাংশ পরিমাণ অলিভ অয়েল এবং চিনি একসাথে মেশাতে হবে। এতে খুব অল্প পরিমাণে মধু মেশানো যেতে পারে। স্ক্রাব তৈরি হয়ে গেলে কনুইয়ে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ম্যাসাজ করতে হবে ১০ মিনিট ধরে। ম্যাসাজ শেষে কুসুম গরম পানিতে কনুই ধুয়ে নিতে হবে। সপ্তাহে দুইবার এই স্ক্রাব ব্যবহার করলেই কনুইয়ের শুষ্কভাব দূর হয়ে যাবে।

অ্যালোভেরা জেল

অ্যালভেরা অন্যতম দারুণ একটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার। যা শুষ্ক কনুইয়ের সমস্যা দূর করতে দারুণ কার্যকরী। বিশেষত, মরা চামড়া তুলে ফেলতে অ্যালোভেরা জেল খুব ভালো কাজ করে থাকে। অ্যালোভেরা জেল ব্যবহারের জন্য পাতা থেকে জেল তুলে সরাসরি কনুইতে মাখাতে হবে। ২০ মিনিট সময় পরে কুসুম গরম পানিতে কনুই ধুয়ে ফেলতে হবে। সপ্তাহে ১-২ বার অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করাই যথেষ্ট।

আরও পড়ুনঃ   ঘরোয়া পদ্ধতিতে ক্লিঞ্জিং করার পরীক্ষিত উপায়!

মধু

মধুর অগণ্য গুণের জন্যে সকল ক্ষেত্রেই মধুর কদর অনেক বেশী। মধু ত্বকের একদম গভীরে পৌঁছে গিয়ে ত্বককে কোমল করতে সাহায্য করে। প্রাকৃতিক এই উপাদান শুষ্ক ত্বকের যত্নে খুব ভালো কাজ করে থাকে। কনুইতে ব্যবহারের জন্য মধু কনুইতে সরাসরি মাখিয়ে ২০ মিনিট সময়ের জন্য রেখে দিতে হবে। এরপর কুসুম গরম পানিতে কনুই ধুয়ে নিতে হবে। সপ্তাহে ১-২ বারের জন্য মধু এইভাবে ব্যবহার করলে কনুইয়ের ত্বক নরম হয়ে যাবে।

সূত্র: Top 10 home remedies 

-কে এন দেয়া

শীতে যেভাবে কোমল ও মসৃণ রাখবেন ত্বক!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

15 + seven =