সুস্বাস্থ্য পেতে নাশতার আগে করুন ৬টি কাজ

0
নাশতা

সুস্বাস্থ্য ও মেদহীন শরীর আমাদের সকলের কাম্য। কিন্তু সেটা অর্জন করতে একটু পরিশ্রম তো করতে হবেই। এছাড়া আমাদের অসচেতনেতার কারণে সুস্বাস্থ্য রয়ে যায় হাতের নাগালের বাইরে। যেমন ধরুন, সকালে নাস্তার আগে কী করতে হবে? অবশ্যই দাঁত ব্রাশ, অন্তত এমন জবাবটাই দেবেন সবাই। কিন্তু জানেন কি? দাঁত ব্রাশ করার পর্বটি নাশতার আগে নয় বরং নাশতার পরে করলেই ভালো। আর এতেই সুস্থ থাকবে আপনার দাঁত। এছাড়াও সুস্বাস্থ্য পেতে রয়েছে আরো কিছু উপায়।

# খালি পেটে পানি পান করুন :

সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর খালি পেটে পানি পান করুন। এতে আপনার শরীরের মেটাবলিজম ত্বরান্বিত হবে এবং ওজন বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা কমে যাবে। সম্ভব হলে এক গ্লাস কুসুম গরম পানিতে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে পান করুন। এতে আপনার পেটের যাবতীয় সমস্যা দূর হয়ে যাবে। পেট পরিষ্কার থাকবে ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হবে।

# এক গ্লাস পানি অবশ্যই
সকালে নাস্তার আগে এক গ্লাস পানি অবশ্যই জরুরী। এই পানিটি ঘুম থেকে ওঠার পর পান করলেই ভালো। সারা রাত আপনার শরীর পানি শুন্য ছিল। তাই ঘুম থেকে উঠেই তাকে পানি দেয়া জরুরী। এই পানি আপনার পাকস্থলীকে সুস্থ রাখবে, আপনার দেহের পানিশূন্যতা রোধ করবে, ভালো রাখবে ত্বক ও চুল। পানি না পান করে খালি পেটে নাস্তা কখনোই খাবেন না।

# অবশ্যই ব্যায়াম
নিয়মিত ব্যায়াম আপনাকে করবে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী। প্রতিদিন ঘুম থেকে ওঠার পর নিয়মিত ব্যায়াম করুন। অল্প সময়ের ব্যায়ামেই আপনি পাবেন দীর্ঘমেয়াদী ফল। আপনি থাকবেন সারা দিনের জন্য ঝরঝরে এবং কর্মক্ষম। জোরে হাঁটা বা দৌড়ানো খুব ভালো ব্যায়াম। ঘুম থেকে ওঠার পর প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০ মিনিট হাঁটতে পারেন। এছাড়া করতে পারেন হালকা কোনো ব্যায়াম।

দাঁত পরিষ্কার করুন :

আমরা প্রায় সকলেই ঘুম থেকে উঠে নাশতা করার আগে দাঁত ব্রাশ করি। আসলে সকালে দাঁত ব্রাশ করার নিয়ম হলো নাশতার পর দাঁত ব্রাশ করা। যদি আপনি রাতে দাঁত ব্রাশ করে ঘুমান, তাহলে নাশতা করার আগে শুধু কুলি করে নিন। এরপর নাশতা করার পর দাঁত ভালো করে ব্রাশ করে পরিষ্কার করুন। এতে আপনার মুখ ও দাঁত সারাদিনের জন্য পরিষ্কার থাকবে এবং নিঃশ্বাসেও খুব বেশি দুর্গন্ধ হবে না

আরও পড়ুনঃ   দাঁতে কালো দাগ পড়ে গিয়েছে, দূর করব কীভাবে?

# মেটাবোলিজম বাড়াতে চাইলে
যাদের ওজনের সমস্যা আছে বা হজমের সমস্যা আছে, তাঁরা মেটাবোলিজম বাড়াতে নাস্তার আগে পান করুন মধু মেশানো উষ্ণ পানি। যাদের লেবুতে গ্যাসের সমস্যা হয় না, তাঁরা পাকা লেবুর রস সামান্য চিপে দিতে পারেন। এই পানীয়টি মেটাবোলিজম বাড়ায় ও ওজন কমাতে সহায়তা করে।

# পেট বা লিভারের সমস্যা আছে যাদের
এমন সমস্যা থাকলে সকালে নাস্তার আগে খালি পেটে অবশ্যই এক কোয়া রসুন খান। আপনি চাইলে চিবিয়ে খেতে পারেন। চাইলে পানি দিয়ে গিলেও খেতে পারেন। খালি পেটে রসুন খাওয়া হাইপারটেনশন ও স্ট্রেস কমাতে সহায়তা করে, অন্যদিকে হজমের গণ্ডগোল রোধ করে।

স্ট্রেস থেকে পেটে গ্যাসের সমস্যা হলে সেটাও প্রতিরোধ করে খালি পেটে রসুন। অন্যদিকে পেটের গণ্ডগোল জনিত অসুখ, যেমন ডায়রিয়া হলে এই খালি পেটে রসুন দ্রুত তা সারিয়ে দেয়। সকালে খালি পেটে রসুন খাওয়া শরীরের রক্ত পরিশুদ্ধ করে ও লিভারের ফাংশন ভালো রাখতেও সহায়তা করে।

সকালে ভরপেট নাশতা করুন :

অনেকেই মোটা হয়ে যাবার ভয়ে সকালে ঠিকমতো নাশতা করেন না। এটা আসলে একটা ভুল ধারণা। বরং সকালে নাশতা না করলেই ওজন বৃদ্ধি পাবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। সকালে ভরপেট নাশতা করুন। এতে আপনার সারাদিনের কর্মক্ষমতা ঠিক থাকবে। দুপুরে ও রাতে অল্প পরিমাণে খেলেও সমস্যা হবে না। সকালের খাদ্যতালিকায় পুষ্টিকর খাবার রাখুন।

চা বা কফি নাশতার পরে খান :

সকালে ঘুম থেকে উঠে অনেকেই খালি পেটে চা বা কফি খান। এটা খুবই খারাপ একটা অভ্যাস। এতে বিভিন্ন ধরনের অসুখ-বিসুখ হবার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। বিশেষ করে ক্রনিক অ্যাসিডিটি বা আলসারের সূত্রপাত এভাবেই হয়। এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্যেও এ অভ্যাস দায়ী। তাই সকালে নাশতা করার পর চা বা কফি খান।

সকালের নাশতা ঠিকমতো খাচ্ছেন তো? না খেলে কী কী ক্ষতি জেনে নিন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

seven − 2 =