স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য রক্ষায় ইভিনিং প্রিমরোজ

0
139
স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য , ইভিনিং প্রিমরোজ
স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য রক্ষায় ইভিনিং প্রিমরোজ
স্বাস্থ্য এবং সৌন্দর্য রক্ষায় কার্যকরী এবং নিরাপদ প্রাকৃতিক উপাদান ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েল। প্রিমরোজ এক ধরনের বন্য ফুল, যা সন্ধ্যার পর ফোটে। প্রিমরোজ ফুলের বীজের নির্যাস থেকে ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েল পাওয়া যায়। বাজারে বিদেশী ওষুধ নামে বেশ কিছু প্রিমরোজ অয়েল আমদানী করা হচ্ছে, যা গুণগত মানসমপন্ন নয়। পটে আমদানী করা এসকল ওষুধ আদৌ কোন ফার্মাসিউটিক্যাল প্রোডাক্ট নয়, এমনকি ওষুধ প্রশাসন দ্ব্বারা অনুমোদিত নয়। এই সমস্ত বিদেশী প্রোডাক্ট ফুড সাপ্লিমেণ্ট নামে সাধারণ মানুষকে প্রতারিত করে আসছে। কিন্তু মানবদেহের জন্য প্রয়োজনীয় অনেক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান থাকায় উন্নত বিশ্বে প্রতিদিনকার ‘ফুড সাপ্লিমেন্ট’ হিসেবে ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েল সেবন করা হয়। লিনোলেইক এসিড এবং গামা লিনোলেনিক এসিড নামক এসেনশিয়াল ফ্যাটি এসিডের প্রাকৃতিক উত্স এই ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েল। গামা লিনোলেনিক এসিড শরীরের হরমোনের ভারসাম্য রক্ষা করে, যা ত্বকের উজ্জ্বলতা ও সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে সহায়ক। বয়স বৃদ্ধি, মানসিক ও শারীরিক চাপ, এলকোহল বা ক্যাফেইন সেবন এবং কোলেস্টরলের আধিক্যে শরীরে গামা লিনোলেনিক এসিডের ঘাটতি হয়। মেয়েদের প্রিমেনুস্টুয়াল সিনড্রম (পিএমএস), ডায়াবেটিস, একজিমা বা অন্যান্য ত্বকের সমস্যার রোগীদের শরীরে গামা লিনোলেনিক এসিডের অভাব দেখা দেয়। এমনকি এই গামা লিনোলেনিক এসিডের ঘাটতির কারণে ব্রণ, একজিমা, আর্থ্রাইটিসের লক্ষণ প্রকাশ পায়। তাই ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েল এর ভূমিকা অনেক। যেমন- ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েলের সক্রিয় উপাদান-গামা লিনোলেনিক এসিড শরীরে হরমোনের সঠিক ভারসাম্য বজায় রেখে ত্বক, নখ ও চুলের উজ্জ্বলতা এবং সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। ব্রণের জন্য দায়ী সেবামকে পাতলা করে এবং সেবামের নিঃসরণ কমিয়ে ব্রণ দূর করে। ত্বকের জলীয়ভাব, সজীবতা, মসৃণতা এবং নমনীয়তা বৃদ্ধির মাধ্যমে ত্বকের সৌন্দর্য বজায় রাখে। মেয়েদের প্রিমেনুস্টুয়াল সিনড্রমের লক্ষণসমূহ যেমন তলপেটে ব্যথা, ব্রেস্ট টেন্ডারনেস এবং ব্রেস্টপেইন কমায়। মহিলাদের ক্ষেত্রে মেনোপজ-পরবর্তী অস্টিওপোরোসিস (হাড়ের ক্ষয়) হয়। প্রিমরোজ অয়েল সেবনে অস্টিওপোরোসিস কমে যায়, শুধু তাই নয়, হাড় অধিকতর দৃঢ়তা লাভ করে। এছাড়াও প্রিমরোজ অয়েল হটফ্লাশ এর সমস্যা যেমন, হঠাত্ গরম লাগা বা ঠান্ডা লাগা কমিয়ে দেয়। প্রিমরোজ অয়েল একজিমা বা ডার্মাটাইটিস সমস্যায় খুবই কার্যকরী। শরীরে পর্যাপ্ত প্রোস্টাগ্ল্যান্ডিন তৈরির মাধ্যমে ব্যথানাশক ওষুধের মত ব্যথা ও প্রদাহ কমায় কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই। এ কারণেই আর্থ্রাইটিসের লক্ষণসমূহ যথা- সন্ধির স্পর্শকাতরতা, সন্ধির ফোলাভাব, সকালবেলায় পেশীর আড়ষ্টতা এবং ব্যথা কমাতে কার্যকর।  প্রিমরোজ ফুলের বীজের নির্যাস থেকে নেয়া পরিশুদ্ধকৃত ইভেনিং প্রিমরোজ অয়েল অত্যাধুনিক ফার্মাসিউটিক্যাল প্রযুক্তির হার্ড জিলেটিন ক্যাপসুল। তবে আশার কথা বাংলাদেশেই এখন ইভেনিং প্রিমরোজ ক্যাপসুল হিসাবে পাওয়া যাচ্ছে। দেশের অন্যতম একটি ওষুধ কোম্পানী জেনারেল ফার্মাসিউটিক্যালস দেশে প্রথম বারের মত তৈরী করছে ইভিনিং প্রিমরোজ। যা ‘রোজ’ নামে পাওয়া যাচ্ছে। কোন প্রকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ছাড়াই এই ক্যাপসুল দীর্ঘ দিন সেবন করা যায়। ক্যাপসুলের মধ্যকার পরিশুদ্ধ তেল (রিফাইন্ড অয়েল) সরাসরি ব্যবহারে ত্বক সুরক্ষিত থাকে। এটা চুলের জন্যও উপকারী।
ইসমত আরা ইয়াসমিন
ফার্মাসিস্ট

সৌন্দর্য্য চর্চায় মসুর ডালের হরেক গুণ

আরও পড়ুনঃ   একবার মাখলেই বয়স কমবে ১০ বছর !

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

eighteen − 8 =